বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > মমতার নির্দেশের পরও দুর্নীতি! তৃণমূলি প্রধানের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ BDO-র
ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

মমতার নির্দেশের পরও দুর্নীতি! তৃণমূলি প্রধানের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ BDO-র

  • মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ওই সব নাম তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার নির্দেশ দিলেও তাতে কান দেননি পঞ্চায়েত প্রধান শিবানী বাপুলি। উলটে জামালচক এলাকার এক পাকা বাড়ির মালিকের নাম তালিকায় ঢুকিয়ে দিয়েছেন তিনি।

মুখ্যমন্ত্রী বলার পরও কানে ঢোকেনি কথা। পূর্ব মেদিনীপুরের এক পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করলেন বিডিও। পূর্ব মেদিনীপুরের আসদতলিয়া গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন বিডিও সঞ্জয় শিকদার। অভিযোগ অস্বীকার করেছেন পঞ্চায়েত প্রধান শিবানী বাপুলি।

গ্রামবাসীদের দাবি, আমফানের ত্রাণ প্রাপকদের তালিকায় ব্যাপক দুর্নীতি হয়েছে এলাকায়। গরিব মানুষের বদলে ত্রাণের টাকা পেয়েছেন বিত্তবান পাকা বাড়ির মালিকরা। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ওই সব নাম তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার নির্দেশ দিলেও তাতে কান দেননি পঞ্চায়েত প্রধান শিবানী বাপুলি। উলটে জামালচক এলাকার এক পাকা বাড়ির মালিকের নাম তালিকায় ঢুকিয়ে দিয়েছেন তিনি। 

এই মর্মে পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে সুতাহাটা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন বিডিও সঞ্জয় শিকদার। অভিযোগ অস্বীকার করেছেন শিবানীদেবী। তাঁর দাবি, চক্রান্ত করে তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়েছে। যাদের তালিকা তিনি পাঠিয়েছেন তাঁরা প্রত্যেকে প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্ত।

পঞ্চায়েত প্রধানের পাশে দাড়িয়েছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। তাদের পালটা দাবি, দুর্নীতি করে ক্ষতিগ্রস্তের তালিকায় নাম ঢুকিয়েছেন বিডিও। 

বন্ধ করুন