বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > আতঙ্কে ঘুম ছুটেছিল স্থানীয় বাসিন্দাদের, অবশেষে খাঁচাবন্দি হল সেই ভাল্লুক
বনকর্মীদের খাঁচায় ধরা পরল ভাল্লুক। ছবিটি প্রতীকী।
বনকর্মীদের খাঁচায় ধরা পরল ভাল্লুক। ছবিটি প্রতীকী।

আতঙ্কে ঘুম ছুটেছিল স্থানীয় বাসিন্দাদের, অবশেষে খাঁচাবন্দি হল সেই ভাল্লুক

  • অবশেষে ভাল্লুকটিকে খাঁচা বন্দি করতে সক্ষম হলেন বনকর্মীরা। রবিবার বিকেলে ডুয়ার্সের বানারহাট ব্লক থেকে ওই ভাল্লুকটিকে খাঁচা বন্দি করা হয়।

ডুয়ার্সের উত্তর শালবাড়ি এলাকার বাসিন্দাদের ঘুম ছুটেছিল ভালুকের আতঙ্কে। বেশ কয়েকদিন ধরেই সেখানে ভাল্লুক ধরার চেষ্টা চালাচ্ছিলেন বন বিভাগের কর্মীরা। অবশেষে ভাল্লুকটিকে খাঁচা বন্দি করতে সক্ষম হলেন বনকর্মীরা। রবিবার বিকেলে ডুয়ার্সের বানারহাট ব্লক থেকে ওই ভাল্লুকটিকে খাঁচা বন্দি করা হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার বিকেলে উত্তর শালবাড়ি এলাকায় কয়েকজন কিশোর খেলছিল। সেখানে থাকা ঝোপের কাছে চোখ যায় কিশোরদের। সেখানেই তারা ভাল্লুকটিকে লুকিয়ে থাকতে দেখে। মুহূর্তের মধ্যে সেই খবর ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। ভাল্লুক দেখতে পেয়ে সকলেই নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যায়। পরে স্থানীয় বাসিন্দারা খবর দেন, বিন্নাগুড়ি ওয়াইল্ডলাইফ স্কোয়াডের কাছে। খবর পাওয়া মাত্রই স্কোয়াডের কর্মীরা সেখানে ছুটে যান। তাঁদের সঙ্গে ছিল বানারহাট থানা পুলিশ। ভাল্লুকটি যাতে কোনওরকমভাবে দুর্ঘটনা ঘটাতে না পারে, তার জন্য পুরো এলাকা ঘিরে ফেলে পুলিশ। অবশেষে বন্যপ্রাণীটিকে লক্ষ্য করে ঘুমপাড়ানি গুলি করা হয়। তাতেই কাবু হয়ে যায় ভাল্লুক। সঙ্গে সঙ্গে ভাল্লুককে খাঁচাবন্দি করা হয়। সেখান থেকে নিয়ে যাওয়া হয় গরুমারায় নিয়ে যাওয়া হয়। জানা গিয়েছে, সেখানে চিকিৎসার পর ভাল্লুকটিকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে নেওড়া ভ্যালির জঙ্গলে।

এরপরে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন এলাকাবাসীরা। তবে ডুয়ার্স সংলগ্ন সমতল এলাকায় আরও ভাল্লুক লুকিয়ে থাকতে পারে বলে মনে করছেন বনকর্মীরা। সম্প্রতি মালবাজার, নাগরাকাটা, আলিপুরদুয়ারে সমতলে ভাল্লুক দেখা গিয়েছে। গরুমারা বন্যপ্রাণী বিভাগের সহকারী বনাধিকারিক জন্মেজয় পাল জানান, ভাল্লুকটির প্রাথমিক চিকিৎসা করা হয়েছে, তাতে ভাল্লুকটি সুস্থ রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। প্রাথমিক চিকিৎসার পর প্রাণীটিকে নেওড়া ভ্যালির জঙ্গলে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

বন্ধ করুন