বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বেড পেতে কালঘাম , করোনায় আক্রান্ত বিদায়ী তৃণমূল বিধায়ক নির্মল মণ্ডলের মৃত্য়ু
  প্রয়াত বিদায়ী বিধায়ক নির্মল মণ্ডল (ফাইল ছবি)
  প্রয়াত বিদায়ী বিধায়ক নির্মল মণ্ডল (ফাইল ছবি)

বেড পেতে কালঘাম , করোনায় আক্রান্ত বিদায়ী তৃণমূল বিধায়ক নির্মল মণ্ডলের মৃত্য়ু

  • বারুইপুর পূর্ব কেন্দ্রের তিনবারের বিধায়ক ছিলেন নির্মল মণ্ডল

করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন তিনি। শারীরিক অবস্থার অবনতি হচ্ছিল কয়েকদিন ধরেই। শুক্রবার দুপুরে মৃত্যু হয়েছে বারুইপুর পূর্ব কেন্দ্রের তিনবারের বিধায়ক তৃণমূলের নির্মল মণ্ডলের।পরিবারের দাবি, কয়েকদিন ধরেই তাঁর জ্বর হয়েছিল। করোনা রিপোর্টও পজিটিভ আসে।এদিকে শারীরিক অবস্থারও ক্রমেই অবনতি হতে থাকে। এরপর হাসপাতালে ভর্তি করার জন্য বেডের খোঁজ শুরু হয়। কিন্তু কোথাও বিশেষ বেড পাওয়া যাচ্ছিল না বলে অভিযোগ। এরপর বৃহস্পতিবার রাতে এম আর বাঙুরে ভর্তি করা হয় তাঁকে। সেখানেই মৃত্যু হয় তাঁর। প্রসঙ্গত তিনবারের বিধায়ক ছিলেন নির্মল মণ্ডল। ২০১৬ সালে তৃণমূলের টিকিটে জয়ী হয়েছিলেন তিনি। তবে ২০২১য়ে বয়সজনিত কারণে টিকিট পাননি তিনি।

তবে গোটা ঘটনায় রাজ্যের স্বাস্থ্য়ব্যবস্থা ফের প্রশ্নের মুখে। বিদায়ী বিধায়কের অসুস্থতার খবর শুনেও দলের অনেককেই পাশে পাওয়া যায়নি বলে অভিযোগ উঠেছে। তবে তৃণমূল সেবাদলের সদস্যরা তাঁর ভর্তির ব্যবস্থা করেছিলেন। এদিকে বাসিন্দাদের একাংশের অভিযোগ কার্যত বিনা চিকিৎসায় চলে যেতে হল শাসকদলের বিদায়ী বিধায়ককে। শেষ সময়ে দলের উচ্চ নেতৃত্ব কাউকে পাওয়া যায়নি। এলাকায় জনদরদী নেতা হিসাবেই পরিচিত ছিলেন তিনি। কিন্তু তাঁর চিকিৎসার জন্য যথাসময়ে বেড না পাওয়ার ঘটনাকে কিছুতেই মানতে পারছেন না দলেরই নীচুতলার কর্মীরা।

স্থানীয়দের বিপদে আপদে যে মানুষটা বার বার ছুটে যেতেন তাঁর পাশেই দলের উচ্চ নেতৃত্বরা থাকবেন না এটা কিছুতেই বিশ্বাস করতে পারছেন না দলের অনেকেই। তাঁর পরিবারের মধ্যেও এনিয়ে অসন্তোষ দানা বেঁধেছে। এর সঙ্গেই প্রশ্ন উঠছে, দলের বিদায়ী বিধায়কের জন্য একটা বেড জোটাতেই যদি পরিবারকে হন্যে হয়ে ঘুরতে হয়, তবে সংকটে পড়লে সাধারণ মানুষের কী হবে? 

বন্ধ করুন