বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ময়নাগুড়ি ও ফালাকাটা পেল পুরসভা, উত্তরবঙ্গে 'প্রতিশ্রুতি পালন' মমতার সরকারের
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএনআই)
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএনআই)

ময়নাগুড়ি ও ফালাকাটা পেল পুরসভা, উত্তরবঙ্গে 'প্রতিশ্রুতি পালন' মমতার সরকারের

রাজ্য সরকারের তরফে যে দুটি এলাকা পুরসভার মর্যাদা পেয়েছে, সেই দুটি পুরসভা উত্তরবঙ্গের আলাদা দুটি জায়গায় রয়েছে।

রাজ্যে আরও দুটি এলাকা পুরসভার মর্যাদা পেয়ে গেল। গতকাল বিধানসভায় বিধান পরিষদ গঠনের প্রস্তাব পাশ হয়ে যায়। এই প্রস্তাব পাশের দিনই উত্তরবঙ্গের দুটি জায়গা এবার পুর এলাকার মর্যাদা পেল। দুই জায়গাতেই পুর কাঠামো গঠনের প্রস্তুতি শেষ হয়ে গিয়েছে। স্বভাবতই খুশির হাওয়া এই দুই পুর এলাকার মানুষের মধ্যে।

রাজ্য সরকারের তরফে যে দুটি এলাকা পুরসভার মর্যাদা পেয়েছে, সেই দুটি পুরসভা উত্তরবঙ্গের আলাদা দুটি জায়গায় রয়েছে। ময়নাগুড়ি পুরসভাটি জলপাইগুড়ি জেলার মধ্যে পড়ে ও ফালাকাটা পুরসভাটি আলিপুরদুয়ার জেলার মধ্যে পড়ে। ইতিমধ্যে ময়নাগুড়ি পুরসভায় জলপাইগুড়ি সদর মহকুমাশাসককে পুর প্রশাসক হিসাবে নিয়োগ করেছে রাজ্য সরকার। পাশাপাশি ফালাকাটা পুরসভায় আলিপুরদুয়ারের মহকুমা শাসককে পুর প্রশাসক হিসাবে নিয়োগ করা হয়েছে। রাজ্য সরকারের নির্দেশিকা অনুযায়ী, এই দুই জেলাতেই আগামী ৬ মাসের জন্য প্রশাসক বসানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। চলতি বছরে রাজ্যে যে পুরভোট হওয়ার কথা রয়েছে, তাতে ময়নাগুড়ি ও ফালাকাটা এই দুই পুরসভাতেও ভোট হওয়ার কথা রয়েছে। নির্বাচনের পর নতুন পুর বোর্ড এসে পুর এলাকার বাকি পরিকাঠামো তৈরি করবে। এই দুই এলাকা পুরসভা হওয়ার ফলে পুর এলাকায় মানুষ যে সুযোগ সুবিধা পান, সেই সব সুযোগ সবিধাই পাবেন।

গত মঙ্গলবার ফালাকাটার বিডিও প্রস্তাবিত পুর এলাকায় পঞ্চায়েত সদস্যদের ডেকে জানিয়ে দেওয়া হয় যে তাঁদের কার্যকালের মেয়াদ শেষ হতে চলেছে। প্রশাসনের তরফে ঠিক হয়েছে, ফালাকাটার পারঙ্গেরপার গ্রাম পঞ্চায়েতের কার্যালয় থেকে পুরসভার যাবতীয় কাজ পরিচালিত হবে। ফালাকাটার বিডিও সুপ্রতীক মজুমদার জানিয়েছেন, পুরসভার ওয়ার্ড বিন্যাস কীভাবে হবে তাঁর একটি প্রস্তাব জমা দেওয়া হয়েছে। উর্ধতন কর্তৃপক্ষ তা বিবেচনা করে ঠিক করবেন। ময়নাগুড়ির ক্ষেত্রেও প্রশাসনের তরফে একই কথাই জানানো হয়েছে। উল্লেখ্য, গত বিধানসভা নির্বাচনে এই ফালাকাটা ও ময়নাগুড়ি দুটি বিধানসভা কেন্দ্রেই বিজেপি জয়লাভ করেছে।

তবে রাজ্য সরকারের এই সিদ্ধান্তে উচ্ছ্বসিত তৃণমূল শিবির। জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূল সভাপতি কৃষ্ণকুমার কল্যাণী জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, রেখেছেন। আশা করা যায়, পুর এলাকার বাসিন্দারা উন্নয়নের সঙ্গেই থাকবেন। তবে বিজেপি পুরসভা হওয়াকে স্বাগত জানালেও তাদের দাবি, 'আমরাও উন্নয়নের সঙ্গে আছি। তবে আগামী ৬ মাসের মধ্যে পুরভোট করানো চাই।'

বন্ধ করুন