বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > 'ইয়াস'-এ ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হলে কৃষকদের ক্ষতিপূরণ দেবে রাজ্য, খোলা হল কন্ট্রোল রুম
'ইয়াস'-এ ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হলে কৃষকদের ক্ষতিপূরণ দেবে রাজ্য, খোলা হল কন্ট্রোল রুম। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
'ইয়াস'-এ ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হলে কৃষকদের ক্ষতিপূরণ দেবে রাজ্য, খোলা হল কন্ট্রোল রুম। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

'ইয়াস'-এ ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হলে কৃষকদের ক্ষতিপূরণ দেবে রাজ্য, খোলা হল কন্ট্রোল রুম

ঘূর্ণিঝড়ে কৃষকদের ফসল নষ্ট হয়ে গেলে তাঁদের ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করা হবে।

‌ঘূর্ণিঝড় ইয়াসে যে সব কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন, তাঁদের পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার। রাজ্য সরকারের তরফে ঘোষণা করা হয়েছে, ঘূর্ণিঝড়ে কৃষকদের ফসল নষ্ট হয়ে গেলে তাঁদের ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করা হবে।

সোমবার নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে একটি বৈঠক হয়। সেই বৈঠকে স্থির করা হয়েছে, যেসব জমিতে একাধিক ফসল হয়, সেইসব জমিতে ফসলের ক্ষতি হলে হেক্টর পিছু ১৩,৫০০ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। জমি যদি এক ফসলি হয়, তবে সেক্ষেত্রে ক্ষতিপূরণের পরিমাণ হেক্টর পিছু ৬,৮০০ টাকা দেওয়া হবে।এছাড়াও যদি পানের বরজ বা বাদাম জাতীয় ফসলের ক্ষতি হয়, তাহলে হেক্টর পিছু ১৮,০০০ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে বলে ঘোষণা করা হয়।|#+|

রাজ্যের কৃষি মন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‌কৃষি ফসলের ক্ষতির ওপর নজর রাখতে একটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে।সেখানে ১২ জন অফিসার থাকবেন। রাজ্যের কোথায় কত ফসলের ক্ষতি হচ্ছে, তা খতিয়ে দেখা হবে। রাজ্য সরকারের প্রতিনিধিরা কতটা ক্ষতি হয়েছে, তা খতিয়ে দেখেই সিদ্ধান্ত নেবেন।’‌

উল্লেখ্য, গত বছর আমফানের সময়ে প্রচুর ফসল ক্ষতি হয়েছে। সেই কথা মাথায় রেখেই এবার কৃষি দফতরের তরফে কৃষকদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হল।কৃষি দফতর সূত্রে খবর, রাজ্যে যেসব জায়গায় বোরো ধানের চাষ হয়েছিল, সেখানকার ফসল ঘরে তুলে নিতে পেরেছিলেন কৃষকরা। কিন্তু দক্ষিণবঙ্গের কয়েকটি জেলায় দ্বিফসলি বা বহুফসলি জমি রয়েছে। সেইসব জমির কৃষকদের নিয়েই উদ্বিগ্ন রাজ্য সরকার।আর তাঁদের জন্যই ক্ষতিপূরণের এই সিদ্ধান্ত।

বন্ধ করুন