বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > করোনার ঢেউ: কলকাতায় দৈনিক আক্রান্ত প্রায় ৪,০০০, উত্তর ২৪ পরগনায় ৩,০০০-এর বেশি
করোনার ঢেউ: কলকাতায় দৈনিক আক্রান্ত প্রায় ৪,০০০, উত্তর ২৪ পরগনায় ৩,০০০-এর বেশি। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
করোনার ঢেউ: কলকাতায় দৈনিক আক্রান্ত প্রায় ৪,০০০, উত্তর ২৪ পরগনায় ৩,০০০-এর বেশি। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

করোনার ঢেউ: কলকাতায় দৈনিক আক্রান্ত প্রায় ৪,০০০, উত্তর ২৪ পরগনায় ৩,০০০-এর বেশি

রাজ্য সরকারের দেওয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ১৬ হাজার।

বাংলায় ভোটের আবহে করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশই বাড়ছে। বিশেষ করে কলকাতায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা অত্যাধিক বেড়ে গিয়েছে। রাজ্য সরকারের দেওয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ১৬,০০০ জন। সংক্রমণের সঙ্গে সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও। তবে কলকাতায় নতুন করে একদিনে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩,৮৬৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৯,৭৭৫ জন। তার ফলে মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬৫৩,৯৮৪।

রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ হাজার ৯৯২ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে মৃত্যুর সংখ্যাও ঊর্ধ্বমুখী। একদিনে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৬৮ জনের। তার ফলে রাজ্যে করোনায় মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১ হাজার ৯ জন। জেলাগুলির পরিস্থিতি বিচার করলে কলকাতা, হাওড়া, হুগলি, উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনার অবস্থা বেশ খারাপ।

সোমবার দক্ষিণ কলকাতার ৪টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ হয়। আর সেদিন কলকাতায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা একলাফে অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। কলকাতার পর উত্তর ২৪ পরগনার অবস্থাও খুবই উদ্বেগজনক। উত্তর ২৪ পরগনায় করোনায় একদিনে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৪২৫ জন। এছাড়াও হাওড়ায় একদিনে আক্রান্ত হয়েছেন ৯১৪ জন।পার্শ্ববর্তী হুগলিতে একদিনে আক্রান্তের সংখ্যাও কম নয় - ৮১৮ জন।এছাড়াও দক্ষিণ ২৪ পরগনাতেও আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে। সেখানে একদিনে আক্রান্ত হয়েছেন ৯৮২ জন।

উল্লেখ্য, রাজ্যে ৮ দফার ভোটে এখনও এক পর্বের ভোট বাকি।আগামী ২৯ এপ্রিল রাজ্যে শেষ দফার ভোট রয়েছে।ওইদিন উত্তর কলকাতায় ৭টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ আছে। ভোটের ফল ২ মে। যেভাবে করোনা সংক্রমণের হার পাল্লা দিয়ে বাড়ছে, তাতে আগামী কয়েকদিন সংক্রমণের মাত্রা কোথায় পৌঁছোবে তা নিয়ে যথেষ্টই আশঙ্কিত বিশেষজ্ঞরা। যদিও বিজেপির অবশ্য দাবি, বাংলায় করোনার সংক্রমণ বাড়ার সঙ্গে নির্বাচনী প্রক্রিয়ার কোনও যোগ নেই।

বন্ধ করুন