বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণ নামল ৭০০-র নীচে, আকাশপথে কলকাতায় আসার শর্ত শিথিল
সাড়ে তিন মাস পর রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণ ৭০০-র কম, আকাশপথে কলকাতায় আসার শর্ত শিথিল। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
সাড়ে তিন মাস পর রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণ ৭০০-র কম, আকাশপথে কলকাতায় আসার শর্ত শিথিল। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণ নামল ৭০০-র নীচে, আকাশপথে কলকাতায় আসার শর্ত শিথিল

তবে একধাক্কায় অনেকটাই কমেছে নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা। সঙ্গে বেড়েছে ‘পজিটিভিটি রেটও’।

প্রায় সাড়ে তিন মাস পর বাংলায় করোনাভাইরাসের দৈনিক সংক্রমণ ৭০০-এর নীচে নামল। সোমবার রাজ্যে ৬৬৬ জন নয়া আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। তবে একধাক্কায় অনেকটাই কমেছে নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা। সঙ্গে বেড়েছে ‘পজিটিভিটি রেটও’।

রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিন অনুযায়ী, সোমবার সকাল ন'টা পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫,১৮,৮৪৭। রবিবার সকাল ন'টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা একধাক্কায় অনেকটা কমলেও নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা প্রায় ১১,০০০ কমেছে। সেইসঙ্গে রবিবারের তুলনায় সোমবার ‘পজিটিভিটি রেট’ বা সংক্রমণের হার কিছুটা বেড়েছে। রবিবার সংক্রমণের হার ছিল ১.৫৬ শতাংশ। সোমবার তা ১.৬ শতাংশ ছাড়িয়ে গিয়েছে। জেলাভিত্তিক সংক্রমণের নিরিখে সোমবার সর্বাধিক ৯৩ জন আক্রান্তের হদিশ মিলেছে উত্তর ২৪ পরগনায়। ৫০-এর উপর নয়া আক্রান্তের হদিশ মিলেছে দুই জেলায় - নদিয়া (৫৭) এবং কলকাতায় (৫৩)। এছাড়া বীরভূমে একজন, পুরুলিয়া, মুর্শিদাবাদ ও উত্তর দিনাজপুর তিনজন করে, মালদহে চারজন, দক্ষিণ দিনাজপুরে ছ'জন আক্রান্তের হদিশ পাওয়া গিয়েছে।

খাতায়কলমে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা কমলেও রবিবারের থেকে সোমবার করোনায় বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। রবিবার রাজ্যে করোনায় প্রাণ হারিয়েছিলেন ১১ জন। সোমবার সেই সংখ্যাটা এক বেড়েছে। তার ফলে রাজ্যে মোট করোনায় মৃতের সংখ্যা ১৮,০০০ পার করে গিয়েছে। আপাতত রাজ্যে মোট প্রাণ হারিয়েছেন ১৮,০১১ (১.১৯ শতাংশ)। শেষ ২৪ ঘণ্টায় সর্বাধিক তিনজনের মৃত্যু হয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুর এবং দার্জিলিঙে। ১৬ জেলা থেকে মৃত্যুর কোনও খবর মেলেনি।

তারইমধ্যে সোমবার রাজ্যে সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৩,০০০-এর নীচে নেমে গিয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা-মুক্ত হয়েছেন ১,০০৬ জন। বুধবার সেই সংখ্যাটা ১,০১২ ছিল। আপাতত রাজ্যে করোনাকে হারিয়ে দিয়েছেন মোট ১৪,৮৮,০৭৭ জন মানুষ (৯৭.৯৭ শতাংশ)। তারইমধ্যে সুস্থ রোগীর সংখ্যা বেশি সক্রিয় আক্রান্তের সংখ্যা কমেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সক্রিয় আক্রান্তের সংখ্যা ৩৫২ কমে দাঁড়িয়েছে ১২,৭৫৯।

অন্যদিকে, সোমবার কলকাতা বিমানবন্দরের তরফে জানানো হয়েছে, পশ্চিমবঙ্গ সরকারের নয়া নির্দেশিকা অনুযায়ী, পশ্চিমবঙ্গে আসা যাত্রীদের পুরো টিকাকরণের শংসাপত্র বা আরটি-পিসিআর নেগেটিভ রিপোর্ট (উড়ান ছাড়ার ৭২ ঘণ্টা আগে) পেশ করতে হবে। যাঁদের সম্পূর্ণ টিকাকরণ হয়নি, তাঁদের আরটি-পিসিআর নেগেটিভ রিপোর্ট দিতে হবে বলে জানানো হয়েছে। এতদিন দুটি ডোজের করোনা টিকা প্রাপকদেরও আরটি-পিসিআর নেগেটিভ রিপোর্ট দেখাতে হত। এবার সেই বিধিনিষেধ শিথিল করা হয়েছে।

বন্ধ করুন