বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > নমুনা পরীক্ষা কমতে রাজ্যে কমল দৈনিক আক্রান্ত, সংক্রমণের শীর্ষে দক্ষিণ ২৪ পরগনা
একইসঙ্গে সচেতনতা এবং অসচেতনতার ছবি। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
একইসঙ্গে সচেতনতা এবং অসচেতনতার ছবি। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

নমুনা পরীক্ষা কমতে রাজ্যে কমল দৈনিক আক্রান্ত, সংক্রমণের শীর্ষে দক্ষিণ ২৪ পরগনা

  • নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা কমতেই রাজ্যে নিম্নমুখী হল দৈনিক করোনাভাইরাস আক্রান্তের গ্রাফ।

নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা কমতেই রাজ্যে নিম্নমুখী হল দৈনিক করোনাভাইরাস আক্রান্তের গ্রাফ। তারইমধ্যে জেলাভিত্তিক সংক্রমণের শীর্ষে উঠে এল দক্ষিণ ২৪ পরগনা। দ্বিতীয় স্থানে উত্তর ২৪ পরগনা থাকল।

রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিন অনুযায়ী, শনিবার সকাল ন'টা পর্যন্ত রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫,৪২,৪২৫। শেষ ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬৭৮। শুক্রবার যে সংখ্যাটা ছিল ৭৫৮। শুক্রবারের থেকে শনিবার আক্রান্তের সংখ্যা কমলেও নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা অনেকটা কমেছে। বেড়েছে সংক্রমণের হারও। শুক্রবার যে সংক্রমণের হার ১.৬ শতাংশ ছিল, শনিবার তা দাঁড়িয়েছে ১.৭ শতাংশ। জেলাভিত্তিক সংক্রমণের নিরিখে শীর্ষে আছে দক্ষিণ ২৪ পরগনা (৮৯)। উত্তর ২৪ পরগনায় ৮৪ জন নয়া আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। এছাড়া কলকাতায় ৭০ জন, দার্জিলিঙে ৬০ জন এবং জলপাইগুড়িতে ৫১ জন আক্রান্ত হয়েছেন। দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা দশের নীচে আছে মুর্শিদাবাদ (তিন), পুরুলিয়া (তিন), মালদহ (চার), দক্ষিণ দিনাজপুর (চার) এবং উত্তর দিনাজপুরে (পাঁচ)।

তারইমধ্যে শনিবার রাজ্যে করোনায় ১০ জনের প্রাণহানি হয়েছে। শুক্রবার ন'জনের মৃত্যু হয়েছিল। শেষ ২৪ ঘণ্টায় সর্বাধিক দু'জন করে মারা গিয়েছেন উত্তর ২৪ পরগনা, কলকাতা এবং পশ্চিম মেদিনীপুর। একজন করে করোনা আক্রান্তের মৃত্যু হয়েছে দার্জিলিং, কালিম্পং, পশ্চিম বর্ধমান এবং নদিয়ায়। সবমিলিয়ে রাজ্যে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮,৩৫৬ (১.১৯ শতাংশ)।

অন্যদিকে, শনিবার রাজ্যে আরও কমেছে সক্রিয় আক্রান্তের সংখ্যা। শেষ ২৪ ঘণ্টায় করোনা-মুক্ত হয়েছেন ৭০৯ জন। তার ফলে মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫,১৪,৪৭৫। যা শতাংশের বিচারে ৯৮.১৯ শতাংশ। দৈনিক আক্রান্তের থেকে সুস্থ রোগীর সংখ্যা সামান্য কম হওয়ায় সক্রিয় আক্রান্তের সংখ্যা ৪১ কমে হয়েছে ৯,৫৯৪।

বন্ধ করুন