বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > কী ভাবে বিরোধীদের মারতে হবে, প্রকাশ্য সভায় দলীয় কর্মীদের বুঝিয়ে দিলেন TMC নেতা

কী ভাবে বিরোধীদের মারতে হবে, প্রকাশ্য সভায় দলীয় কর্মীদের বুঝিয়ে দিলেন TMC নেতা

বিরোধীদের কী ভাবে মারধর করতে হবে, প্রকাশ্য মঞ্চে শেখাচ্ছেন মোদাস্সর হোসেন।

তৃণমূল কর্মীদের উদ্দেশে অভিযোগের সুরে তিনি বলেন, ‘তোমাদের আবার পাছায় মারতে বললে তোমরা মাথায় মেরে আসো। পাছায় আর হাঁটুতে মারবে। মাথায় মারলে মাথা ফেটে রক্ত বেরোবে। রক্ত বেরোলে পুলিশ মামলা করবে।

বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের কী ভাবে মারতে হবে তার কর্মশালা করলেন স্বনামধন্য তৃণমূল নেতা মোদাস্সর হোসেন। শনিবার ভাঙড়ের ভোগালি গ্রামে এক কর্মিসভায় তাঁকে নির্দেশ দিতে শোনা যায়, ‘মাথায় মারলি হবে না। পাছায় মারতি হবে’। একই সঙ্গে বুথে বুথে তৃণমূলের গুন্ডাবাহিনী তৈরি রাখার নির্দেশ দেন তিনি। আর এসব যখন তিনি বলছেন তখন মঞ্চে বসে তৃণমূল নেতা আরাবুল ইসলাম।

শনিবার ভোগালি গ্রামে এক কর্মিসভায় ভোগালি ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান মোদাস্সরকে বলতে শোনা যায়, ‘এলাকায় আইএসএফ রাতে খানা - ডোবার ধারে বৈঠক করছে। তাদের ধরতে হবে। সব জায়গায় নজর রাখতে হবে। প্রত্যেক ২টি বুথ পিছু একটা করে কমিটি তৈরি করতে হবে। কমিটিতে থাকবে ২০ – ৪০ জন ছেলে। কোথাও ওরা বৈঠক করছে শুনলেই চেপে ধরতে হবে। কয়েক জায়গায় চেপে ধরলে ওদের বৈঠক করা বন্ধ হয়ে যাবে।’

এর পরই তৃণমূল কর্মীদের উদ্দেশে অভিযোগের সুরে তিনি বলেন, ‘তোমাদের আবার পাছায় মারতে বললে তোমরা মাথায় মেরে আসো। পাছায় আর হাঁটুতে মারবে। মাথায় মারলে মাথা ফেটে রক্ত বেরোবে। রক্ত বেরোলে পুলিশ মামলা করবে। সেটা কি জানো না? যে ভাবে বলছি সে ভাবে চলবে।’

একই সঙ্গে এদিন তিনি বলেন, ‘যারা বিরোধীদের সঙ্গে ঘোরাফেরা করে তাদের কাজ দেখি আগে হয়ে যায়। আর দলের যারা একনিষ্ঠ কর্মী তাদের কাজ হতে চায় না। এবার থেকে ১০০ দিনের কাজের জব কার্ডের সঙ্গে আধার লিংক না করলে পয়সা পাওয়া যাবে না। যারা আমাদের সঙ্গে আছে আছে শুধু তাদেরই জব কার্ডের সঙ্গে আধার লিংক হবে। তালিকা আমি নিজে দেখে নেব।’ 

 

বন্ধ করুন