বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > এলাকায় দাদাগিরি!‌ তুমুল সংঘর্ষে উত্তেজনা, গ্রেফতার সিভিক ভলেন্টিয়ার–সহ সাত
পুলিশ এসে এই অভিযুক্ত সিভিক ভলেন্টিয়ারকে গ্রেফতার করে। ছবি সৌজন্যে হিন্দুস্তান টাইমস।
পুলিশ এসে এই অভিযুক্ত সিভিক ভলেন্টিয়ারকে গ্রেফতার করে। ছবি সৌজন্যে হিন্দুস্তান টাইমস।

এলাকায় দাদাগিরি!‌ তুমুল সংঘর্ষে উত্তেজনা, গ্রেফতার সিভিক ভলেন্টিয়ার–সহ সাত

  • বিজয়া দশমীর দিন বাজি ফাটানোকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত ভাতার। দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

শুভ বিজয়া শুভ হল না সিভিক ভলেন্টিয়ারের জীবনে। কারণ মারপিঠ করে সেই সিভিক ভলেন্টিয়ার গ্রেফতার হয়েছেন। এলাকায় অশান্তি চরমে উঠেছিল। পুলিশে স্থানীয়রা খবর দেওয়ায় পুলিশ এসে এই অভিযুক্ত সিভিক ভলেন্টিয়ারকে গ্রেফতার করে। বিজয়া দশমীর দিন বাজি ফাটানোকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত ভাতার। দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। যার জেরে গ্রেফতার করা হয় এক সিভিক ভলেন্টিয়ার–সহ সাতজনকে। অশান্ত হয়ে ওঠে এলাকা।

স্থানীয় সূত্রে খবর, পূর্ব বর্ধমানের ভাতারের বড়বেলুন গ্রামে সন্ধ্যেবেলায় বাজি ফাটানো শুরু হয়। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পাড়ার মধ্যে মারপিটের ঘটনা ঘটে। সেখানে এই কাজে জড়িয়ে পড়ে সিভিক ভলেন্টিয়ার–সহ সাতজন। খবর দেওয়া হয় পুলিশে। তখন ভাতার থানার পুলিশ তাঁদের গ্রেফতার করে পরিস্থিতি সামাল দেয়।

শুভ বিজয়া শুভ হল না সিভিক ভলেন্টিয়ারের জীবনে। কারণ মারপিঠ করে সেই সিভিক ভলেন্টিয়ার গ্রেফতার হয়েছেন। এলাকায় অশান্তি চরমে উঠেছিল। পুলিশে স্থানীয়রা খবর দেওয়ায় পুলিশ এসে এই অভিযুক্ত সিভিক ভলেন্টিয়ারকে গ্রেফতার করে। বিজয়া দশমীর দিন বাজি ফাটানোকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত ভাতার। দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। যার জেরে গ্রেফতার করা হয় এক সিভিক ভলেন্টিয়ার–সহ সাতজনকে। অশান্ত হয়ে ওঠে এলাকা।

স্থানীয় সূত্রে খবর, পূর্ব বর্ধমানের ভাতারের বড়বেলুন গ্রামে সন্ধ্যেবেলায় বাজি ফাটানো শুরু হয়। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পাড়ার মধ্যে মারপিটের ঘটনা ঘটে। সেখানে এই কাজে জড়িয়ে পড়ে সিভিক ভলেন্টিয়ার–সহ সাতজন। খবর দেওয়া হয় পুলিশে। তখন ভাতার থানার পুলিশ তাঁদের গ্রেফতার করে পরিস্থিতি সামাল দেয়।|#+|

পুলিশ সূত্রে খবর, মোট গ্রেফতার করা হয়েছে সাতজনকে। এই ঘটনায় জড়িত রয়েছে এক সিভিক ভলেন্টিয়ারও। তাঁর নাম কৌশিক রায়। অন্যান্য অভিযুক্তরা হল চিরঞ্জিত ভট্টাচার্য্য, রামকৃষ্ণ রায়, রিংকু রায়, মিলন মল্লিক, রাজু সানা ও রামকৃষ্ণ রায়। এদের প্রত্যেকের বাড়ি ভাতারের বড়বেলুন গ্রামে। ধৃতদের বর্ধমান আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, শুক্রবার বোমাতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে পূর্ব বর্ধমানে। বর্ধমান স্টেশনে পড়ে থাকা একটি ব্যাগকে ঘিরে তৈরি হয় বোমাতঙ্ক। যাত্রীরা ছোটাছুটি করতে শুরু করে। তার জেরে ছড়ায় তীব্র চাঞ্চল্য। বন্ধ করে দেওয়া হল ট্রেন চলাচল। পরে অবশ্য সব স্বাভাবিক হয়।

বন্ধ করুন