বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > নীলষষ্ঠীর পুজোর আগে স্নানে নেমে স্ত্রীর সামনে তলিয়ে গেলেন স্বামী

নীলষষ্ঠীর পুজোর আগে স্নানে নেমে স্ত্রীর সামনে তলিয়ে গেলেন স্বামী

বাঁ দিকে নিহত বিশাল (ফাইল ছবি), ডান দিকে ঘটনার কথা জানাচ্ছেন স্ত্রী রূপা। 

বিশাল জলে ডুবে যাচ্ছেন বলে স্ত্রীর সঙ্গে রসিকতা করা শুরু করেন। এই করতে করতে গভীর জলে চলে যান তিনি। তলিয়ে যেতে থাকেন যুবক। স্বামী সত্যি সত্যিই তলিয়ে যাচ্ছেন বুঝে নিজের শাড়ি খুলে বিশালের দিকে ছুড়ে দেন রূপা। কিন্তু তাতে শেষরক্ষা হয়নি।

নীল ষষ্ঠীর পুজো দেওয়ার আগে স্নান করতে নেমে স্ত্রীর সামনে গঙ্গায় তলিয়ে গেলেন যুবক। বৃহস্পতিবার উত্তর ২৪ পরগনার ভাটপাড়ার রূপদাস বাবুর ঘাটের ঘটনা। নিখোঁজ যুবকের নাম বিশাল সরকার (২০)। অভিযোগ, স্বামীকে বাঁচানোর জন্য স্ত্রী ঘাটে উপস্থিত মানুষজনের সাহায্য চাইলেও এগিয়ে আসেননি কেউ। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে ভাটপাড়া থানার পুলিশ ও বিপর্যয় মোকাবিলা দল।

নিহত যুবকের বাড়ি ভাটপাড়া পুরসভার ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের মাদ্রালে। বৃহস্পতিবার স্ত্রীর রূপার সঙ্গে রূপ প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিশাল ও তাঁর স্ত্রী রুপা কিছুক্ষণ ঘাটে বসেছিলেন। তারপর দু’জনে গঙ্গায় স্নান করতে নামেন। কিছুক্ষণের মধ্যে রূপাদেবী জল থেকে উঠে পুজো দেওয়ার জন্য তৈরি হতে থাকেন। তখন বিশাল জলে ডুবে যাচ্ছেন বলে স্ত্রীর সঙ্গে রসিকতা করা শুরু করেন। এই করতে করতে গভীর জলে চলে যান তিনি। তলিয়ে যেতে থাকেন যুবক। স্বামী সত্যি সত্যিই তলিয়ে যাচ্ছেন বুঝে নিজের শাড়ি খুলে বিশালের দিকে ছুড়ে দেন রূপা। কিন্তু তাতে শেষরক্ষা হয়নি। অবশেষে ঘাটে উপস্থিত অন্যান্যদের কাছে স্বামীকে বাঁচানোর জন্য আকুতি জানান তিনি। কিন্তু কেউ এগিয়ে আসেনি বলে অভিযোগ।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় ভাটপাড়া থানার পুলিশ। পৌঁছয় বিপর্যয় মোকাবিলা দল। পৌঁছন স্থানীয় তৃণমূল নেতারা। এলাকার কাউন্সিলর বলেন, ঘাটের অবস্থা অত্যন্ত খারাপ। সেটা ওপরতলার নেতাদের জানিয়েছি। কিন্তু কোনও ফল হয়নি। সম্ভবত ছেলেটি ঠিক মতো সাঁতার জানত না। তাই ডুবে গিয়েছে। বিশাল সাঁতার জানতেন না বলে স্বীকার করে নিয়েছে স্ত্রী রূপা।

 

বন্ধ করুন