বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > জয়ের আনন্দে পিকনিক করতে গিয়ে বলাগড়ে তৃণমূল কর্মীদের কোপ বিজেপির, আহত ৫
জয়ের আনন্দে পিকনিক করতে গিয়ে বলাগড়ে তৃণমূল কর্মীদের কোপ বিজেপির, আহত ৫: ছবিটি প্রতীকী (‌ফাইল চিত্র)‌ (HT_PRINT)
জয়ের আনন্দে পিকনিক করতে গিয়ে বলাগড়ে তৃণমূল কর্মীদের কোপ বিজেপির, আহত ৫: ছবিটি প্রতীকী (‌ফাইল চিত্র)‌ (HT_PRINT)

জয়ের আনন্দে পিকনিক করতে গিয়ে বলাগড়ে তৃণমূল কর্মীদের কোপ বিজেপির, আহত ৫

  • তৃণমূলের দাবি, ধারালো অস্ত্র দিয়ে তৃণমূল কর্মীদের কোপাতে থাকে বিজেপি-র দুষ্কৃতীরা। এই ঘটনায় তৃণমূলের ৫ কর্মী আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ। তাঁদের মধ্যে ২ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

করোনার আবহে বিজয় উৎসব পালন করতে গিয়ে বিজেপি কর্মীদের ভোজালির কোপে আহত হলেন ৫ তৃণমূল কর্মী। সোমবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে হুগলি জেলার বলাগড়ের বারুজীবী কলোনিতে।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের দাপটে টালমাটাল অবস্থা গোটা রাজ্যের। সংক্রমিত ও মৃত্যুর হার জেট গতিতে বেড়ে চলেছে। এই অবস্থায় দলীয় কর্মীদের কোনও রকম বিজয় উৎসব পালন করতে বারণ করেছিলেন মমতা বন্দোপাধ্যায়। এদিন রাতে সেই মতো প্রকাশ্যে তা পালন না করে, হুগলির বলাগড়ের বারুজীবী কলোনিতে পিকনিক করছিলেন তৃণমূলের কর্মীরা।

সেই সময় বিজেপির বিরুদ্ধে তাঁদের উপর ধারাল অস্ত্র দিয়ে হামলা চালানোর অভিযোগ উঠে।

 

ভোজালির কোপে গুরুতর আহত হন ওই ৫ তৃণমূল কর্মী। ঘটনার পর তাঁদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এখন তাঁরা সেখানেই চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তবে স্থানীয় বিজেপি নেতা ধারাল অস্ত্র দিয়ে কোপানোর কথা অস্বীকার করলেও মারামারির কথা স্বীকার করেছেন তিনি।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ঘটনার রাতে বারুজীবীতে জয়ের আনন্দে পিকনিক করছিলন জনা ৪০ তৃণমূল কর্মী-সমর্থক। রাত সাড়ে ১০টা নাগাদ খাওয়া দাওয়া চলছিল সেখানে। ঝড় বৃষ্টিতে সে সময় বিদ্যুৎ চলে যায়। অন্ধকারে তৃণমূল কর্মীদের উপর হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ। তৃণমূলের দাবি, ধারালো অস্ত্র দিয়ে তৃণমূল কর্মীদের কোপাতে থাকে বিজেপি-র দুষ্কৃতীরা। এই ঘটনায় তৃণমূলের ৫ কর্মী আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ। তাঁদের মধ্যে ২ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। বাপ্পা ঘোষ ও তাঁর ভাই বাপন ঘোষের আঘাত গুরুতর বলে জানা গিয়েছে। আহতদের প্রথমে জিরাট হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে সেখান থেকে চুঁচুড়ার ইমামবাড়া হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায়, বাপ্পা ঘোষকে কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে এসে ভরতি করানো হয়েছে।

ঘটনা প্রসঙ্গে তৃণমূল নেতা শান্তনু বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘বিজয় মিছিল বন্ধ। দলের কর্মীরা একটু আনন্দ করছিলেন। তখন আচমকা হামলা চালায় বিজেপি কর্মীরা। বারুজীবীর ওই বুথে বিজেপি বরাবরই গণ্ডগোল করে। বেচু নায়েক ও অলোক কুন্ডুর নির্দেশে অনিমেষ দেবনাথের দলবল আমাদের কর্মীদের উপর হামলা চালিয়েছে। আমরা থানায় অভিযোগ করেছি।’

বিজেপি-র হুগলি সাংগঠনিক জেলা সভাপতি গৌতম চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘বিজেপিকে সব জায়গায় মারা হচ্ছে। আমাদের কর্মীদের বাড়ি ভাঙচুর করা হচ্ছে। বলাগড়ে একটা সংঘর্ষ হয়েছে। তৃণমূলের ছেলেরা আমাদের মেরেছিল। তাই আমাদের ছেলেরাও মেরেছে।’ বলাগড় থানার পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনায় চার জন বিজেপি কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

 

বন্ধ করুন