বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ভোটের পর ঘরছাড়া, বাড়িতে ফেরার পরই বিজেপি কর্মীকে 'বেধড়ক মারধর'
ভোটের পর ঘরছাড়া, বাড়িতে ফেরার পরই বিজেপি কর্মীকে 'বেধড়ক মারধর'
ভোটের পর ঘরছাড়া, বাড়িতে ফেরার পরই বিজেপি কর্মীকে 'বেধড়ক মারধর'

ভোটের পর ঘরছাড়া, বাড়িতে ফেরার পরই বিজেপি কর্মীকে 'বেধড়ক মারধর'

বিজেপির অভিযোগ, বেশ কিছুদিন ধরেই কমলকে তৃণমূলে যোগ দেওয়ার জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছিল।

রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসার তদন্ত যখন চলছে, তখন ফের আক্রান্ত হলেন এক বিজেপি কর্মী। অভিযোগের তির তৃণমূলের দিকে। যদিও এই হামলার দায় অস্বীকার করেছে তৃণমূল। গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভরতি ওই বিজেপি কর্মী।

ঘটনাটি ঘটেছে আলিপুরদুয়ার জেলার চাপড়রপাড় ১ নম্বর পঞ্চায়েত এলাকায়। গত সোমবার রাতে কমল দাস নামে এক বিজেপি কর্মীর বাড়িতে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা চড়াও হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। বিজেপির অভিযোগ, বেশ কিছুদিন ধরেই কমলকে তৃণমূলে যোগ দেওয়ার জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছিল। কিন্তু কমল তাতে রাজি হননি। সোমবার রাতে কমলের বাড়িতে দুষ্কৃতীরা ঢুকে তাঁকে বেধড়ক মারধর করে। হামলায় তাঁর মাথা ফেটে যায়। হাত ভেঙে যায়। চোখেও আঘাত লাগে। গুরুতর আহত অবস্থায় জেলা হাসপাতালে ভর্তি করানো হয় বিজেপি নেতাকে। উল্লেখ্য, ভোট ফল প্রকাশের পর থেকে ঘরছাড়া ছিলেন কমল। কিছুদিন আগেই তিনি বাড়ি ফিরেছিলেন।

গত মঙ্গলবার আহত বিজেপি নেতাকে হাসপাতালে দেখতে যান আলিপুরদুয়ারের বিজেপি বিধায়ক সুমন কাঞ্জিলাল। এই ঘটনা প্রসঙ্গে বিজেপি বিধায়ক জানান, ‘‌সিবিআই ভোট পরবর্তী হিংসার তদন্ত করছে। কিন্তু তারমধ্যেও হিংসার ঘটনা ঘটেই চলেছে। বিজেপি কর্মীরা এখনও আক্রান্ত হচ্ছেন। কমল আমাদের সক্রিয় কর্মী। যেভাবে ওকে মারধর করা হয়েছে, তাতে কবে ও সুস্থ হবে জানি না।’‌

না।’‌

যদিও এই ঘটনার সঙ্গে তৃণমূলের কোনও সম্পর্ক নেই বলেই জানিয়েছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। তৃণমূলের মতে, বিজেপির অন্তর্দ্বন্দ্বের জেরেই এই হামলার ঘটনাটি ঘটেছে। এর সঙ্গে শাসক দলের কেউ জড়িত নয়।

বন্ধ করুন