বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বিজেপির হামলার মুখে পার্টি অফিসে লুকিয়ে প্রাণ বাঁচালেন তৃণমূল নেতা
প্রতীকি ছবি

বিজেপির হামলার মুখে পার্টি অফিসে লুকিয়ে প্রাণ বাঁচালেন তৃণমূল নেতা

  • ঘটনার সূত্রপাত শনিবার রাতে, ময়নার মাধবচক গ্রামে বিজেপি নেতা ব্রজগোপাল মণ্ডলকে গ্রেফতার করতে আসে পুলিশ। কিন্তু তাঁর হদিশ পায়নি। এর পর রাতে ব্রজগোপাল দলবল নিয়ে পাশের গ্রাম বাকচায় তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য শংকর মণ্ডল ও তৃণমূল নেতা সঞ্জয় মণ্ডলের বাড়িতে হামলা চালায় বলে অভিযোগ।

পূর্ব মেদিনীপুরের ময়নায় ২ বিজেপি নেতার বাড়িতে হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগ বিজেপির বিরুদ্ধে। রাতে তৃণমূল নেতাদের বাড়িতে বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা হামলা চালায় বলে অভিযোগ। প্রাণ বাঁচাতে পাশে তৃণমূল পার্টি অফিসে আশ্রয় নেন এক তৃণমূল নেতা। অভিযোগ অস্বীকার করে বিজেপির দাবি, গণরোষের শিকার হয়েছেন বিজেপি নেতারা।

ঘটনার সূত্রপাত শনিবার রাতে, ময়নার মাধবচক গ্রামে বিজেপি নেতা ব্রজগোপাল মণ্ডলকে গ্রেফতার করতে আসে পুলিশ। কিন্তু তাঁর হদিশ পায়নি। এর পর রাতে ব্রজগোপাল দলবল নিয়ে পাশের গ্রাম বাকচায় তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য শংকর মণ্ডল ও তৃণমূল নেতা সঞ্জয় মণ্ডলের বাড়িতে হামলা চালায় বলে অভিযোগ। শিশুদের মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে হুমকি দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। প্রাণ বাঁচাতে পাশে তৃণমূল পার্টি অফিসে আশ্রয় নেন শংকরবাবু। এর পর ২টি বাড়িতে যথেচ্ছ ভাঙচুর চালায় ২০ – ২৫ জন দপু।

বিজেপির দাবি, এলাকায় সন্ত্রাস চালাচ্ছে তৃণমূলই। বিজেপি নেতাকর্মীরা বাড়ি থেকে বেরোলেই মিথ্যে মামলায় ফাঁসানোর হুমকি দিচ্ছে।

পালটা তৃণমূলের দাবি, বিধানসভা নির্বাচনের পর থেকে এলাকায় সন্ত্রাস ছড়ানোর চেষ্টা করছে বিজেপি। তৃণমূল কর্মীদের ওপর লাগাতার আক্রমণ হচ্ছে।

বলে রাখি, রাজনৈতিক হিংসার দীর্ঘ ইতিহাস রয়েছে ময়নায়। বাম জমানা থেকেই সেখানে প্রাণঘাতী রাজনৈতিক সংঘর্ষের নজির রয়েছে। বিরাম নেই তৃণমূল জমানাতেও।

 

বন্ধ করুন