বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বনগাঁয় BJP নেতাকে মারধর, দুষ্কৃতীরা ধরা না পড়লে আগুন জ্বলবে, হুঁশিয়ারি শান্তনুর
আহত বিজেপি নেতা সুতনু হালদারকে বনগাঁ থেকে আনা হচ্ছে কলকাতায়। 
আহত বিজেপি নেতা সুতনু হালদারকে বনগাঁ থেকে আনা হচ্ছে কলকাতায়। 

বনগাঁয় BJP নেতাকে মারধর, দুষ্কৃতীরা ধরা না পড়লে আগুন জ্বলবে, হুঁশিয়ারি শান্তনুর

  • দুষ্কৃতীদের মারে সুতনুবাবুর মাথায় চোট লাগে। পায়ের হাড় ভেঙেছে বলে খবর।

বিজেপি নেতা ব্যবসায়ীকে মারধরের অভিযোগে উত্তপ্ত হয়ে উঠল উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁ। অভিযোগ, বৃহস্পতিবার বিজেপির স্থানীয় শক্তিকেন্দ্রের প্রধান সুতনু দেবনাথকে তাঁর দোকান থেকে টেনে বার করে ব্যাপক মারধর করে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। এর পরই বনগাঁ থানার সামনে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু করে বিজেপি। স্থানীয় সাংসদ শান্তনু ঠাকুরের হুঁশিয়ারি, ’২৪ ঘণ্টার মধ্যে দোষীদের বিরুদ্ধে পুলিশ ব্যবস্থা না নিলে আগুন জ্বলবে বনগাঁয়।’

বিজেপির দাবি, বৃহস্পতিবার দুপুরে বনগাঁ শহরের বিএসএফ মোড়ের কাছে নিজের দোকানেই ছিলেন স্থানীয় শক্তিকেন্দ্রের প্রধান সুতনুবাবু। জনা কয়েক তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতী এসে তাঁকে টেনে দোকান থেকে বার করে। এর পর লাঠি-বাঁশ ও রড দিয়ে তাঁকে ব্যাপক মারধর করা হয়। দুষ্কৃতীদের মারে সুতনুবাবুর মাথায় চোট লাগে। পায়ের হাড় ভেঙেছে বলে খবর। 

গুরুতর আহত অবস্থায় সুতনু দেবনাথকে বনগাঁ মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যান স্থানীয়রা। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসার পর যুবককে কলকাতায় স্থানান্তরিত করা হয়। 

ঘটনার প্রতিবাদে বনগাঁ থানার সামনে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু করে বিজেপি। পুলিশ বিক্ষোভ তুলতে গেলে উত্তেজনা চরমে ওঠে। এর পর ঘটনাস্থলে পৌঁছন স্থানীয় সাংসদ শান্তনু ঠাকুর। তিনি জানান, ‘সুতনুর বিরুদ্ধে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে পুলিশ ২৪ ঘণ্টার মধ্যে পদক্ষেপ না করলে আগুন জ্বলবে বনগাঁয়।’

বিজেপির দাবি, তৃণমূলের পায়ের তলা থেকে মাটি সরে গিয়েছে বলে ব্যক্তি আক্রমণের পথে হাঁটছে তারা। আজ যে ভাবে সুতনুকে মারধর করা হয়েছে তাতে তাঁর মৃত্যুও হতে পারত। ঘটনার দায় অস্বীকার করেছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। তাদের দাবি, বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দের জেরে আক্রান্ত হয়েছেন সুতনুবাবু।

 

বন্ধ করুন