বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা না বলে ক্ষতিপূরণের প্যাকেজ মানি না, দেউচায় বললেন রাজু
বৃহস্পতিবার দেউচায় গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলছেন রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। 
বৃহস্পতিবার দেউচায় গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলছেন রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। 

গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা না বলে ক্ষতিপূরণের প্যাকেজ মানি না, দেউচায় বললেন রাজু

  • এদিন দেউচা মোড়ের কাছে রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়ের গাড়ি লক্ষ্য করে প্রথমে কালো পতাকা দেখায় তৃণমূল। তার পর তাঁর গাড়ি আটকে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে তারা।

দেউচা - পাচমি কয়লাখনি এলাকায় ক্ষতিগ্রস্তদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে বাধার মুখে পড়লেন বিজেপি নেতা রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার গ্রামবাসীদের সঙ্গে দেখা করতে গেলে তাঁকে কালো পতাকা দেখায় তৃণমূল। এমনকী তাঁর গাড়ি আটকে রাখা হয় বলে অভিযোগ। মহম্মদবাজার থানার পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়।

দেউচা - পাচমি কয়াখনিতে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার। সঙ্গে ক্ষতিপূরণের পরিমান ঠিক করার জন্য তৈরি হয়েছে বিশেষ কমিটি। আদিবাসী অধ্যুষিত ওই এলাকায় রাজ্য সরকারের প্যাকেজ নিয়ে নানা অভিযোগ রয়েছে গ্রামবাসীদের। সেসব শুনতেই বুধবার সেখানে গিয়েছিলেন রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। অভিযোগ, গ্রামবাসীদের সঙ্গে দেখা করতে বাধা দেওয়া হয় তাঁকে।

এদিন দেউচা মোড়ের কাছে রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়ের গাড়ি লক্ষ্য করে প্রথমে কালো পতাকা দেখায় তৃণমূল। তার পর তাঁর গাড়ি আটকে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে তারা। মুহূর্তে এলাকায় উত্তেজনা ছড়ায়। খবর পেয়ে সেখানে পৌঁছয় মহম্মদবাজার থানার পুলিশ। তারা বিক্ষোভকারীদের বুঝিয়ে গাড়ির সামনে থেকে সরান।

এর পর গ্রামবাসীদের সঙ্গে দেখা করে রাজুবাবু বলেন, যে সরকার ১০ বছরে একটা শিল্প আনতে পারেনি তারা কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করবে এটা গ্রামবাসীরা বিশ্বাস করছেন না। তারা কয়লাখনি চান না। সিঙুর আন্দোলনের সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, সিপিএম কৃষকদের সঙ্গে কথা না বলে জমি অধিগ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আর এখানে কলকাতায় বসে উনি ক্ষতিপূরণ ঠিক করেছেন। একজন গ্রামবাসীর সঙ্গেও কথা বলেননি। আমাদের দাবি সমস্ত গ্রামবাসীর সঙ্গে কথা বলতে হবে। আমরা শিল্পের বিরুদ্ধে নই। কিন্তু এখানে আদিবাসীরা ঘরবাড়ি হারাবে আর সেই সুযোগে কলকাতায় বসে কেউ কোটি কোটি টাকা কামাবে এটা হতে পারে না’।

 

বন্ধ করুন