বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > টেনশন দিলে পেনশন বন্ধ:‌ পুলিশকে হুমকি ‌রাজুর;‌ ওকেই মানুষ মারবে:‌ পাল্টা অনুব্রত
অনুব্রত মণ্ডল ও রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি
অনুব্রত মণ্ডল ও রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

টেনশন দিলে পেনশন বন্ধ:‌ পুলিশকে হুমকি ‌রাজুর;‌ ওকেই মানুষ মারবে:‌ পাল্টা অনুব্রত

  • বিজেপি নেতা আরও হুঁশিয়ারি, ‘‌টেনশন দেবেন না, আগামীদিন সাসপেনশন অপেক্ষা করছে। আপনাকে কোনও দাদা বাঁচাতে পারবে না।’‌ এদিকে, রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়কে এদিন ‘‌পাগল’‌ বলে আক্রমণ করেছেন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল।

আমাদের টেনশন দিলে পেনশন বন্ধ হয়ে যাবে। যাঁরা টেনশন দিয়েছেন সাসপেনশনের জন্য অপেক্ষা করুন। কেউ আপনাদের বাঁচাতে পারবে না— বৃহস্পতিবার বীরভূমের সাঁইথিয়ায় দলীয় কর্মসূচিতে এভাবেই পুলিশকে হুমকি দিলেন বিজেপি নেতা রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়।

পুলিশের নাম নিয়েই এদিন রাজু বলেন, ‘তৃণমূলের অনেক চামচাগিরি করেছেন। প্রচুর বালির পয়সা খেয়েছেন, কাটমানি খেয়েছেন। তৃণমূলের দালালি করেছেন। বিজেপি কর্মীদের একটা–একটা মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়েছেন, আমার কর্মীদের প্রচুর টেনশন দিয়েছেন। আমি সব পুলিশকর্মীকে বলছি না। যাঁরা তৃণমূলের হয়ে কাটমানি খাচ্ছেন, যাঁরা সংবিধান মানছেন না, আমি সেই সমস্ত পুলিশকর্মীকে বলছি, আমার কর্মীদের টেনশন দেবেন না। না হলে আগামীদিন কিন্তু আপনার পেনশনও বন্ধ হয়ে যাবে।’‌

বিজেপি নেতা আরও হুঁশিয়ারি, ‘‌টেনশন দেবেন না, আগামীদিন সাসপেনশন অপেক্ষা করছে। আপনাকে কোনও দাদা বাঁচাতে পারবে না।’‌ এদিকে, রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়কে এদিন ‘‌পাগল’‌ বলে আক্রমণ করেছেন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল।

এদিন কটাক্ষ করে অনুব্রত বলেন,‌ ‘‌যখনই আসে বীরভূমে তখনই ও পাগলের মতো কিছু একটা বলে দেয়। ঠ্যাঙ ভেঙে দেব, চোখ তুলে নেব, পুলিশকে দেখে নেব, পুলিশকে মারব— এই সব বলে। কিন্তু এ সব কথা এক শ্রেণির মানুষ শুনবে না। ওকে ধরে বেধড়ক পিটিয়ে দেবে। কথাবার্তা একটু বুঝে বলতে হয়। না হলে হাত–পা ভেঙে বাড়ি ফিরতে হবে।’‌

এর পাল্টা এদিন রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‌অনুব্রত মণ্ডল নিজেই গুন্ডা। তার থেকে এই বক্তব্য স্বাভাবিক। বাংলার মানুষ আদৌ তাঁকে হাঁটতে দেবেন কিনা তা ঠিক নেই। আর তার জন্য তিনি যজ্ঞ করছেন। কিন্তু বীরভূমের মানুষের হাত থেকে তিনি বাঁচতে পারবেন না। যেমন রাবণও যজ্ঞ করে প্রাণে বাঁচতে পারেননি।’‌

বন্ধ করুন