বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ‌নন্দীগ্রামে গণইস্তফার পথে বিজেপি নেতারা, স্নায়ুর চাপ বাড়ল শুভেন্দু অধিকারীর
বিজেপির পতাকা (HT_PRINT)

‌নন্দীগ্রামে গণইস্তফার পথে বিজেপি নেতারা, স্নায়ুর চাপ বাড়ল শুভেন্দু অধিকারীর

  • নন্দীগ্রামে মণ্ডল সভাপতি পদে চাপিয়ে দেওয়া ব্যক্তিকে পছন্দ নয় গেরুয়া শিবিরের নেতা–কর্মীদের। তাই মণ্ডল সভাপতি বদল না হলে গণইস্তফার হুমকি দিয়ে জেলা সভাপতি তপন বন্দ্যোপাধ্যায় এবং রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারকে চিঠি দেন নন্দীগ্রামের বিজেপি নেতা–কর্মীরা।

অর্জুন সিং বিজেপি সংস্রব ত্যাগ করতেই ব্যারাকপুর সাংগঠনিক জেলার দায়িত্ব নিয়ে আসা হল শুভেন্দু অধিকারীকে। অথচ তাঁর গড়েই নেমে আসছে অন্ধকার। রাজ্যের বিরোধী দলনেতার নির্বাচনী কেন্দ্র নন্দীগ্রামে একঝাঁক বিজেপি নেতা গণইস্তফার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন। এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই স্নায়ুর চাপ বাড়ল রাজ্যের বিরোধী দলনেতার বলে খবর।

ঠিক কী ঘটেছে নন্দীগ্রামে?‌ বিজেপি সূত্রে খবর, নন্দীগ্রামে মণ্ডল সভাপতি পদে চাপিয়ে দেওয়া ব্যক্তিকে পছন্দ নয় গেরুয়া শিবিরের নেতা–কর্মীদের। তাই মণ্ডল সভাপতি বদল না হলে গণইস্তফার হুমকি দিয়ে জেলা সভাপতি তপন বন্দ্যোপাধ্যায় এবং রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারকে চিঠি দেন নন্দীগ্রামের বিজেপি নেতা–কর্মীরা। এখন ২০০ জন নেতা–কর্মী গণইস্তফার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আজ, সোমবার নন্দীগ্রামে ওই নেতা–কর্মীরা জরুরি বৈঠকেও বসেছেন।

এখানেও কী দাদার অনুগামী?‌ সূত্রের খবর, নন্দীগ্রাম বিধানসভার অধীনে মোট পাঁচটি মণ্ডল কমিটি। তার মধ্যে শুধুমাত্র নন্দীগ্রাম–১ দক্ষিণ মণ্ডল সভাপতি পদে বদল হয়েছে। ওই মণ্ডল কমিটির সভাপতি ছিলেন জয়দেব মণ্ডল। এবার তাঁকে সরিয়ে শ্যামাপ্রসাদ মাইতিকে মণ্ডল সভাপতি করা হয়েছে। এই নিয়েই সোনাচূড়া, কালীচরণপুর, গোকুলনগর এলাকার বিজেপি নেতা–কর্মীরা বেজায় ক্ষুব্ধ। কারণ এই শ্যামাপ্রসাদ মাইতি দাদার অনুগামী।

গণইস্তফার সিদ্ধান্ত কেন নেওয়া হল?‌ দলীয় সূত্রে খবর, জয়দেব মণ্ডল এলাকার লড়াকু নেতা। আর পুরনো দিনের কর্মী। হঠাৎ তাঁকে সরিয়ে আনকোরা একজনকে সভাপতি করে দেওয়া হয়েছে। এই অবস্থায় স্থানীয় মণ্ডল নেতৃত্বের পক্ষ থেকে জেলা সভাপতিকে তিনজনের সম্ভাব্য নামের তালিকা পাঠানো হয়। ওই তিনজনের মধ্যে কেউ মণ্ডল সভাপতি না হলে গণইস্তফা দেওয়ার কথা জানানো হয়। গণইস্তফার তালিকায় জয়দেব ছাড়াও মণ্ডল কমিটির দু’জন সাধারণ সম্পাদক শ্বাশত মিদ্যা ও বিষ্ণুপদ প্রামাণিক, সহ–সভাপতি রবীন পাত্র, অসীম করণ, মহিলা মোর্চার মণ্ডল সভাপতি মোহিনী দাস, যুব মোর্চার মণ্ডল সভাপতি পূর্ণ পাত্র–সহ মোট ২০০ জন আছেন।

বন্ধ করুন