বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ভাগচাষির বাড়িতে কেশবের মধ্যাহ্নভোজ, বেলাশেষে হাজির তৃণমূল বিধায়ক!
উত্তরপ্রদেশের উপ-মুখ্যমন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা কেশবপ্রসাদ মৌর্য। (ছবি সৌজন্য টুইটার)
উত্তরপ্রদেশের উপ-মুখ্যমন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা কেশবপ্রসাদ মৌর্য। (ছবি সৌজন্য টুইটার)

ভাগচাষির বাড়িতে কেশবের মধ্যাহ্নভোজ, বেলাশেষে হাজির তৃণমূল বিধায়ক!

  • এই আসা–যাওয়ার সাক্ষী থাকলেন ভাগচাষি প্রশান্ত রায়। কিন্তু স্রোতে ভাসলেন কী?‌ উঠছে প্রশ্ন।

এখন রাজ্য–রাজনীতিতে আসা–যাওয়ার পালা শুরু হয়েছে। একজন পদ্ম নেতা কারও বাড়িতে এসে খেয়ে চলে গেলেন। তারপরই হাজির আর এক ঘাসফুল নেতা তাঁকে বোঝাতে। এই আসা–যাওয়ার সাক্ষী থাকলেন ভাগচাষি প্রশান্ত রায়। কিন্তু স্রোতে ভাসলেন কী?‌ উঠছে প্রশ্ন। কারণ মঙ্গলবার দুপুরে গোঘাটের দক্ষিণপাড়ার ভাগচাষি প্রশান্ত রায়ের বাড়িতে মধ্যাহ্নভোজ সেরে বেরলেন উত্তরপ্রদেশের উপ-মুখ্যমন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা কেশবপ্রসাদ মৌর্য।

ঠিক তারপরেই প্রশান্তর বাড়িতে হাজির গোঘাটের তৃণমূল বিধায়ক মানস মজুমদার। সেখান থেকে বেরিয়ে বললেন, ‘ভয় দেখাতে নয়, বঙ্গধ্বনি যাত্রা কর্মসূচি নিয়েই এসেছিলাম। বোঝালাম। এবার চলে যাচ্ছি।’ প্রশান্তর বাড়িতে ঢোকার আগে রাস্তায় কেশবপ্রসাদকে কালো পতাকা দেখায় তৃণমূল। এই নিয়ে কেশবপ্রসাদের প্রতিক্রিয়া, ‘আমি নিশ্চিত যে, এই রাজ্যে আমরাই ক্ষমতায় আসছি।’

ভাগচাষির বাড়িতে কী খেলেন?‌ কেশবপ্রসাদের আপ্যায়নে ছিল, রুটি, ভাত, আলু ও ফুলকপি দিয়ে পোস্ত, মটর–গাজর আর বিন দিয়ে সবজির ডাল, শুক্তো, বেগুন ভাজা, আলু ভাজা, কড়লা ভাজা, শাক ভাজা, খেজুরের চাটনি, পাঁপড়, মিষ্টি এবং পায়েস।

এই বিষয়ে প্রশান্ত বলেন, ‘আচমকাই আমাকে বলা হয়, আমাদের বাড়িতে দুপুরের খাবার খাবেন উত্তরপ্রদেশের উপমুখ্যমন্ত্রী। কেউ আতিথ্য নিতে চাইলে ভালো লাগে। খুশি হয়েই রাজি হয়েছি। কাল তৃণমূল বিধায়ক মানসবাবু কিংবা অন্য কেউ খেতে চাইলেও আমরা ধন্য হব।’

বন্ধ করুন