বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > 'ফোনও ধরছেন না বিজেপি বিধায়ক', 'চিন্তায়' থানায় 'নিখোঁজ' ডায়েরি তৃণমূলের
শ্রীরূপা চৌধুরী। সৌজন্যে ফেসবুক।
শ্রীরূপা চৌধুরী। সৌজন্যে ফেসবুক।

'ফোনও ধরছেন না বিজেপি বিধায়ক', 'চিন্তায়' থানায় 'নিখোঁজ' ডায়েরি তৃণমূলের

  • যদিও তৃণমূলের এরকম আচরণে মোটেও সন্তুষ্ট নন স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব।

একুশের বিধানসভা নির্বাচনে ঘাসফুলকে হারিয়ে মালদহের ইংরেজবাজারের বিধায়ক হয়েছেন বিজেপির শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরী। ভোটের প্রচারে তিনি ইংরেজবাজার গিয়েছেন বহুবার। কিন্তু ভোট মেটার পর এলাকায় আর 'দেখা মিলছে না' ওই বিজেপি বিধায়কের। এমনই অভিযোগ তুলে বিজেপি বিধায়কের নামে থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করল তৃণমূল। শুক্রবার যুব তৃণমূলের তরফে ইংরেজবাজারে মানববন্ধন করা হয় এবং তারপরেই তাদের পক্ষ থেকে থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করা হয়।

যুব তৃণমূলের সদস্যদের বক্তব্য, 'ভোট মিটে যাওয়ার পর বিজেপি বিধায়ক শ্রীরূপা চৌধুরীর আর দেখা মিলছে না। তাঁকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। ফলে এলাকার জনসাধারণ সমস্যায় পড়লে তৃণমূলের কাছে ছুটে আসছে। তৃণমূল কর্মীরা সব রকম ভাবে মানুষের সাহায্য করার চেষ্টা করছে।' কিন্তু একজন বিধায়ক হিসেবে মানুষের জন্য যা কাজ করা উচিত বিজেপি বিধায়ক তা করছেন না বলেই এদিন অভিযোগ তুলেছে তৃণমূল।

যুব তৃণমূলের সদস্যদের অভিযোগ, শ্রীরূপা চৌধুরী মানুষের ভোটে বিধায়ক হয়েছেন। তাই তাঁর কর্তব্য হল এলাকার মানুষের পাশে দাঁড়ানো। কিন্তু, নির্বাচনের পর তিনি কখনও তা করেননি। এমনকি সাধারণ মানুষের সমস্যার সময় ফোন করা হলেও তিনি ফোন ধরেন না বলে অভিযোগ তৃণমূল যুব সদস্যদের। এদিন, থানায় ডায়েরির পাশাপাশি শ্রীরূপা চৌধুরীর নিখোঁজের পোস্টার নিয়ে ইংরেজবাজারের রাস্তায় মানববন্ধন করে তৃণমূল যুব কংগ্রেস। তারা দাবি করে বিধায়কের সন্ধান দিতে হবে।

যদিও তৃণমূলের এরকম আচরণে মোটেও সন্তুষ্ট নন স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব। বিজেপির জেলা সভাপতি গোবিন্দচন্দ্র মণ্ডল বলেন, ' বিজেপি দলের কেউ নিখোঁজ হলে তার নিখোঁজ ডায়েরি করবে বিজেপি। সে ক্ষেত্রে তৃণমূলের কোন অধিকার নাই। ' সেইসঙ্গে শ্রীরূপা তাঁর সচিবের সাহায্যে এলাকার কাজ সামলান বলেও তিনি জানান।

বন্ধ করুন