বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ফের ‘হোয়াটসঅ্যাপ বিদ্রোহে’ জর্জরিত BJP, এবার গ্রুপ ছাড়লেন খোদ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী
বনগাঁর বিজেপি সাংসদ শান্তনু ঠাকুর।
বনগাঁর বিজেপি সাংসদ শান্তনু ঠাকুর।

ফের ‘হোয়াটসঅ্যাপ বিদ্রোহে’ জর্জরিত BJP, এবার গ্রুপ ছাড়লেন খোদ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

  • ‘অভিমানের’ কারণ নিয়ে এখনই বিশদে কিছু বলতে চাননি শান্তনু ঠাকুর। 

কয়েকদিন আগেই বিজেপিতে দেখা দিয়েছিল ‘হোয়াটসঅ্যাপ বিদ্রোহ’ রোগ। প্রথমে মতুয়া, পরে বাঁকুড়ার বিধায়করা বিজেপির অফিশিয়াল গ্রুপ ছেড়ে বিদ্রোহ ঘোষণা করেছিলেন। মূলত দলের সাংগঠনিক রদবদলে অসন্তুষ্ট হয়েই এই কাজ করেছিলেন বিজেপি বিধায়করা। তবে তারপর গত কয়েকদিনে হোয়াটসঅ্যাপ বিদ্রোহ রোগ থেকে ধীরে ধীরে সেরে উঠেছিল বিজেপি। তবে নতুন করে এই উপসর্গ দেখা গেল বিজেপিতে। এবার খোদ সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী শান্তনু ঠআকুর ছাড়লেন বিজেপির অফিশিয়াল গ্রুপ।

জানা গিয়েছে, গতকাল বিজেপির সমস্ত অফিসিয়াল গ্রুপ ছাড়েন বনগাঁর বিজেপি সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী শান্তনু ঠাকুর। পরে সংবাদমাধ্যমে গ্রুপ ছাড়ার কথা স্বীকার করেন শান্তনু নিজেও। যদিও তাঁর ‘অভিমানের’ কারণ নিয়ে এখনই বিশদে কিছু বলতে চাননি তিনি। তবে তাঁর ইঙ্গিত স্পষ্ট। গ্রুপ ত্যাগ প্রসঙ্গে শান্তনুর সংক্ষিপ্ত মন্তব্য, ‘কেন গ্রুপ ছেড়েছি, সময়মতো জানাব। তবে মনে হয়েছে বিজেপিতে আমরা নিষ্প্রয়োজন, তাই সমস্ত গ্রুপ ছেড়ে দিয়েছি।’ সূত্রের খবর, আজকে তাঁর সমস্যা নিয়ে খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করতে পারেন শান্তনু ঠাকুর।

উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগেই ঘোষিত হয়েছে বিজেপির নয়া রাজ্য কমিটি৷ তার পর থেকেই হিড়িক পড়ে বিজেপি নেতা-বিধায়কদের দলের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছাড়ার৷ এরপরই শান্তনু নতুন কমিটি  গঠনের বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করার জন্য সাতদিন সময় দিয়েছিলেন। চিঠি লিখেছিলেন দলের সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নড্ডাকেও। রাজ্য কমিটিতে মতুয়া প্রতিনিধিত্ব নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছিলেন শান্তনু। এই আবহে সোমবার রাতে জানা যায়, রাজ্য বিজেপির সব অফিশিয়াল হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছেড়ে বেরিয়ে যান শান্তনু।  

  

বন্ধ করুন