বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > মমতা আসলে জমির দালাল, বিশ্বভারতীর জমি দখল করে প্রোমোটারি করতে চান: সৌমিত্র খাঁ
শান্তিনিকেতনে বুধবারের মিছিলে সৌমিত্র খাঁ
শান্তিনিকেতনে বুধবারের মিছিলে সৌমিত্র খাঁ

মমতা আসলে জমির দালাল, বিশ্বভারতীর জমি দখল করে প্রোমোটারি করতে চান: সৌমিত্র খাঁ

  • সৌমিত্র খাঁর দাবি, রবীন্দ্রনাথের ঐতিহ্য মুছে ফেলে গুন্ডারাজ কায়েম করতে চাইছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যা কোনও দিন হতে দেবে না বিজেপি।

বিশ্বভারতীতে ভাঙচুরের প্রতিবাদে রাস্তায় নামল বিজেপি। বুধবার দুপুরে কলকাতার সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউয়ে মিছিল করে তারা। মিছিলে নেতৃত্ব দেন বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ ও বোলপুরের প্রাক্তন সাংসদ অনুপম হাজরা। মিছিল থেকে তাণ্ডবকারীদের গ্রেফতারির দাবি ওঠে। 

‘বাঙালির সংস্কৃতি, ঐতিহ্যের ওপর আঘাত মানছি না মানব না’ লেখা ব্যানার হাতে এদিন সৌমিত্র খাঁ বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিশ্বভারতীর জমি দখল করে প্রোমোটারি করতে চাইছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জমির দালাল। আর সেই কাজে ব্যবহার করছেন অনুব্রত মণ্ডল ও বিধায়ক নরেশ বাউড়িকে। 

সৌমিত্র খাঁর দাবি, রবীন্দ্রনাথের ঐতিহ্য মুছে ফেলে গুন্ডারাজ কায়েম করতে চাইছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যা কোনও দিন হতে দেবে না বিজেপি। পশ্চিমবঙ্গে শান্তি প্রতিষ্ঠা করবে তারা। 

এদিনের মিছিল কিছুদূর এগোতেই বাধা দেয় পুলিশ। পুলিশের সঙ্গে ধুন্ধুমার বাঁধে বিজেপি কর্মীদের। এর পর সৌমিত্র খাঁ, অনুুপম হাজরা-সহ মিছিলে অংশগ্রহণকারীদের আটক করে লালবাজারে নিয়ে যান পুলিশকর্মীরা। বিজেপির অভিযোগ, সোমবার শান্তিনিকেতনে চার ঘণ্টা ধরে ভাঙচুর চললেও দেখা যায়নি পুলিশকে। ওদিকে তার প্রতিবাদে বিজেপি পথে নামতেই রাস্তা ছয়লাপ হয়ে গিয়েছে পুলিশকর্মীতে। 

বলে রাখি, গত সোমবার শান্তিনিকেতনের পৌষমেলা মাঠে পাঁচিল দেওয়া নিয়ে ধুন্ধুমার বাঁধে। পে লোডার এনে পাঁচিল ভেঙে ফেলেন তৃণমূল নেতা নরেশ বাউড়ি ও স্থানীয় কিছু ব্যবসায়ী। ঘটনায় ইতিমধ্যে সিবিআই তদন্তের দাবি করেছে বিশ্বভারতী। অন্তত ১০০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে কর্তৃপক্ষ।

 

বন্ধ করুন