লকডাউনে বিবাদ হাওড়ায়
লকডাউনে বিবাদ হাওড়ায়

'যে গরু দুধ দেবে তার লাথিও খেতে হবে'-'টিকিয়াপাড়ায় পুলিশ নিগ্রহের পর মমতার কথাই হাতিয়ার বিজেপির

এই ঘটনার জেরে সরেছেন হাওড়ার পৌর কমিশনার।

হাওড়ার টিকিয়াপাড়ায় প্রকাশ্য দিবালোকে যেভাবে পুলিশদের ওপর চড়াও হল একদল মানুষ, তার পরেই জমে উঠেছে রাজনৈতিক তরজা। এই ঘটনা ঘিরে পুলিশ ও প্রশাসনের ব্যর্থতা দায়ী বলে অভিযোগ প্রধান বিরোধী দল বিজেপির। একই সঙ্গে তৃণমূলনেত্রীর লোকসভা ভোট পরবর্তী উক্তিকে হাতিয়ার করেই তাঁকে কোণঠাসা করার চেষ্টা করছে গেরুয়া শিবির।

টিকিয়াপাড়ায় মঙ্গলবার লকডাউন না মেনে পুলিশের ওপর চড়াও হন কিছু ব্যক্তি। আহত হয় দুই পুলিশকর্মী ও দুটি গাড়ি ভাঙচুর হয়। ঘটনার জেরে ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই হাওড়ার পৌর কমিশনারকে সরিয়ে দিয়েছে রাজ্য সরকার। তাঁর জায়গায় অস্থায়ী ভাবে দায়িত্ব নিয়েছেন হাওড়ার অতিরিক্ত ডিস্ট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেট। এই ঘটনায় দোষীদের সমুচিত শাস্তি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ।

অন্যদিকে বিজেপির পক্ষ থেকে রাস্তায় আধাসেনা নামানোর দাবি তুলেছেন দিলীপ ঘোষ। বিজেপির আইটি সেলের প্রধান অমিত মালব্য আবার মমতারই পুরনো এক উক্তিকে তুলে বিঁধেছেন মুখ্যমন্ত্রীকে।মমতা একদা বলেছিলেন,যে গরু দুধ দেবে তার লাথিও খেতে হবে। সেই কথাকে তুলে ধরে মালব্যর প্রশ্ন এবার তাহলে যে পুলিশ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছে, তাকেই লাখি খেতে হল!

মালব্যর এই টুইট রিটুইট করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। বিজেপির রাজ্যস্তরের বহু নেতা টুইটারে এই অভিযোগও করেছেন যে তৃণমূলের ভোট ব্যাঙ্কই আক্রমণ করেছে পুলিশকে। ইঙ্গিতটা কোন দিকে, তা খুবই স্পষ্ট।


বন্ধ করুন