বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > কাশীপুরের ছায়া খেজুরিতে, বিজেপির যুব কর্মীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার
মৃতদেহের প্রতীকী ছবি।
মৃতদেহের প্রতীকী ছবি।

কাশীপুরের ছায়া খেজুরিতে, বিজেপির যুব কর্মীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার

  • পূর্ব মেদিনীপুর জেলার খেজুরি বিধানসভার বাঁশগোড়া বাজার সংলগ্ন এলাকায় এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। খুন নাকি আত্মঘাতী?‌ উঠছে প্রশ্ন। পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কাঁথি মহকুমা হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

কাশীপুরের ছায়া এবার খেজুরিতে। বাড়ি ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে উদ্ধার হল যুবকের ঝুলন্ত মৃতদেহ৷ তিনি এলাকার বিজেপি কর্মী হিসেবেই পরিচিত৷ পূর্ব মেদিনীপুর জেলার খেজুরি বিধানসভার বাঁশগোড়া বাজার সংলগ্ন এলাকায় এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। খুন নাকি আত্মঘাতী?‌ উঠছে প্রশ্ন। পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কাঁথি মহকুমা হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

ঠিক কী ঘটেছে খেজুরিতে?‌ পুলিশ সূত্রে খবর, মৃত যুবকের নাম দেবাশিস মান্না (২২)। তার বাড়ি খেজুরি থানার বালিচক গ্রামে। মৃত যুবক কলকাতায় চাকরি করতেন। সেখান থেকে সম্প্রতি চাকরি ছেড়ে বাড়ি ফেরেন। তারপর থেকেই পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে তাঁর অশান্তি চলছিল। তার জেরেই এই আত্মহত্যা কিনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

কী তথ্য উঠে আসছে?‌ স্থানীয় সূত্রে খবর, বাবা মুক্তিপদ মান্না এলাকার সক্রিয় বিজেপি নেতা। এই খুনের পিছনে রাজনৈতিক কারণ দেখছে পদ্ম শিবির। শনিবার সকালে বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে একটি গাছে ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান বাসিন্দারা। তবে মৃত যুবকের পরিবারের সদস্যরা মুখে কুলুপ এঁটেছেন। পরিবারের সঙ্গে অশান্তির পর নিজের অ্যাকাউন্ট থেকে ১০ হাজার টাকা তোলেন দেবাশিস৷ বাড়িতে ৬ হাজার টাকা দেয়। নিজের হাত খরচের জন্য আরও ৪ হাজার টাকা দেখে দেয়।

ঠিক কী বলছে বিজেপি?‌ কাঁথি সাংগঠনিক জেলার বিজেপির সাধারণ সম্পাদক তাপস কুমার দলুই বলেন, ‘‌এই ঘটনার তদন্তের দাবি জানাই। পুলিশের তৎপরতায় আমাদের সন্দেহ হচ্ছে৷ কাশীপুরের স্টাইলেই এই ঘটনা৷ তাই তদন্ত হওয়ার প্রয়োজন রয়েছে৷ যদিও খেজুরির তৃণমূল কংগ্রেস নেতা পার্থপ্রতিম দাস বলেন, ‘‌বিষয়টি আমার জানা নেই। খোঁজ নিয়ে দেখব। তবে বিজেপি অহেতুক এইসব নিয়ে রাজনীতি করছে৷’‌

বন্ধ করুন