বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > কাজে লাগানো হয়নি, পদ ছেড়ে আসানসোলে BJP-র অস্বস্তি আরও বাড়ালেন অভিমানী নেত্রী!
আসানসোলে জেলা সম্পাদকের পদ ছাড়লেন বিজেপি নেত্রী (ছবি সৌজন্যে পিটিআই)
আসানসোলে জেলা সম্পাদকের পদ ছাড়লেন বিজেপি নেত্রী (ছবি সৌজন্যে পিটিআই)

কাজে লাগানো হয়নি, পদ ছেড়ে আসানসোলে BJP-র অস্বস্তি আরও বাড়ালেন অভিমানী নেত্রী!

  • অভিমানী নেত্রীর পদত্যাগে আসানসোলে আরও ‘সঙ্কটে’ বিজেপি।

কয়েকদিন আগেই বাবুল সুপ্রিয়র বিরুদ্ধে একগুচ্ছ অভিযোগ নিয়ে পদ্ম ছেড়ে ঘাসফুল শিবিরে যোগ দিয়েছিলেন বিজেপি-র জেলা সম্পাদকে থাকা মদনমোহন চৌবে। সেই রেশ কাটতে না কাটতেই এবার বাবুল গড়ে পদ ছাড়লেন আরও এক হেভিওয়েট। সোশ্যাল মিডিয়ায় এক পোস্টের মাধ্যমে জেলা সম্পাদকের পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন সুধা দেবী। উল্লেখ্য, আসানসোলে দলের ‘সঙ্কট ব্যবস্থাপনা’ বিভাগের প্রধান ছিলেন সুধা দেবী। তবে সেই সঙ্কটমোচন নেত্রী পদ ছাড়ায় অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির।

এদিকে সুধা দেবীকে নিয়ে অস্বস্তিতে থাকার কথা মানতে নারাজ বিজেপি। দলীয় সূত্রে দাবি করা হচ্ছে, খুব শীঘ্রই অভিমান ভেঙে নিজের পুরোনো দায়িত্বে ফিরবেন সুধা দেবী। উল্লেখ্য, বিধানসভা ভোটের পর বুধবার প্রথম বৈঠকে বসে বিজেপির আসানসোল জেলা কমিটি। সেই বৈঠকে উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও খুঁজে পাওয়া যায়নি সুধা দেবীকে। এই বৈঠকের আগেই ফেসবুকে এক পোস্টের মাধ্যমে জেলা সম্পাদক এবং সঙ্কট ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রধানের পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা জানান সুধা দেবী।

এদিকে পদ ছাড়লেও দলের প্রাথমিক সদস্যপদ ছাড়েননি সুধাদেবী। তিনি জানান, সাধারণ কর্মী হিসেবে দলের হয়ে কাজ চালিয়ে যাবেন তিনি। এদিকে কয়েকদিন আগেই গেরুয়া শিবিরের জেলা সম্পাদকের পদ থেকে পদত্যাগ করে তৃণমূলে নাম লেখান মদনমোহন চৌবে সহ একাধিক নেতা-কর্মী। সেই ঘটনার কয়েকদিনের মাথায় আরও এক জেলা সম্পাদকের পজত্যাগের জেরে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলেই।

দলের পদ ছাড়া প্রসঙ্গে সংবাদ মাধ্যমকে সুধা দেবী বলেন, 'আট বছর ধরে দলের কাজ করছি। তবে প্রথমবার দেখলাম বিধানসভা ভোটে কোনও কাজে না লাগানো হল না। দুই মাস হতে চলল। অথচ কেই এটার বিষয়ে চিন্তিত নন। কেন হারলাম, তা নিয়ে আত্মসমালোচনার জন্য কোনও বৈঠক হয়নি। কী ভাবে সংগঠনকে মজবুত করে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে তা নিয়েও কারোর মাথাব্যথা নেই। তাই আমি নিজেকে সরিয়ে নিলাম।'

 

বন্ধ করুন