জয়ন্তীতে ব্ল্যাক প্যান্থার
জয়ন্তীতে ব্ল্যাক প্যান্থার

বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পে দেখা মিলল বিরল কালো চিতাবাঘের

  • তবে বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পের ওই এলাকা ভৌগলিক কারণে বেশ নিরাপদ। তাই সেখানে মাঝেমাঝেই দেখা মেলে ব্ল্যাক প্যান্থার, ক্লাউডেড লেপার্ডের মতো বিরল প্রাণী।

বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পে ফের দেখা মিলল ব্ল্যাক প্যান্থারের। গত ১২ জানুয়ারি জয়ন্তীর মহাকালের কাছে একসঙ্গে ২টি কালো চিতাবাঘের দেখা মিলেছে। তাদের ছবিও তুলেছেন পর্যটকরা। বনদফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, মাঝে মাঝেই বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পে ব্ল্যাক প্যান্থারের দেখা মেলে। তবে একসঙ্গে ২টি ব্ল্যাক প্যান্থারের দেখা মেলার ঘটনা এই প্রথম।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ব্ল্যাক প্যান্থার কোনও নতুন জন্তু নয়। এটি সাধারণ চিতাবাঘেরই একটি বর্ণগত বিভেদ। যেমন সাদা রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার আর সাধারণ বাঘে রং ছাড়া অন্য কোনও প্রকারভেদ নেই, তেমনই কালো চিতাবাঘের সঙ্গে কোনও ফারাক নেই সাধারণ চিতাবাঘের। ফলে একে বিরল প্রাণী বলা গেলেও বিলুপ্তপ্রায় বলা যায় না।

বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পে একসঙ্গে ২টি কালো চিতাবাঘের দেখা মেলায় বনদফতর নড়ে চড়ে বসেছেন। তবে বক্সা বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ডুয়ার্সের বনাঞ্চলে যেমন নানা বিরল প্রাণী রয়েছে তেমনই রয়েছে চোরাশিকারিদের আনাগোনাও। তবে বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পের ওই এলাকা ভৌগলিক কারণে বেশ নিরাপদ। তাই সেখানে মাঝেমাঝেই দেখা মেলে ব্ল্যাক প্যান্থার, ক্লাউডেড লেপার্ডের মতো বিরল প্রাণী।

প্রাণী বিশেষজ্ঞদের মতে, জিনের কারসাজিতে জন্ম নেয় ব্ল্যাক প্যান্থার। এক্ষেত্রে প্রাণী ২টি পুরুষ ও স্ত্রী হলে ভবিষ্যতে আরও কালো চিতা দেখা যেতে পারে বক্সায়।

বন্ধ করুন