দফতরে বসে মদ্যপানের অভিযোগ কেশপুরের BLRO-র বিরুদ্ধে।
দফতরে বসে মদ্যপানের অভিযোগ কেশপুরের BLRO-র বিরুদ্ধে।

অফিসের ভিতর মদ - মাংস সহযোগে পার্টি করতে গিয়ে ধরাপড়লেন BLRO

  • অফিসে ঢুকে তাঁদের চক্ষু চড়কগাছ। দেখেন, সরকারি অফিসের মধ্যেই চলছে মদ – মাংসের উৎসব। আর তার মধ্যমণি বিএলআরও প্রশান্ত বিশ্বাস নিজে।

সরকারি অফিসে বসে মদ – মাংস সহযোগে মোচ্ছব করছেন স্বয়ং ব্লক ভূমি ও ভূমিরাজস্ব আধিকারিক। এই দৃশ্য দেখে ক্ষোভে ফেটে পড়লেন তৃণমূল কর্মীরা। পশ্চিম মেদিনীপুরের কেশপুরে উঠেছে মারাত্মক এই অভিযোগ।

স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি, বুধবার সন্ধ্যার পর তাঁরা কেশপুর ব্লক ভূমি ও ভূমি রাজস্ব দফতরে যান। বিধায়কের করা একটি বালিপাচারের অভিযোগে তদন্তের অগ্রগতি দেখতে বিএলআরও-র সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন তাঁরা। কিন্তু অফিসে ঢুকে তাঁদের চক্ষু চড়কগাছ। দেখেন, সরকারি অফিসের মধ্যেই চলছে মদ – মাংসের উৎসব। আর তার মধ্যমণি বিএলআরও প্রশান্ত বিশ্বাস নিজে।

এই দেখে ক্ষোভে ফেটে পড়েন তৃণমূলকর্মীরা। বিএলআরও অফিসের সামনে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন তাঁরা। বেশ কিছুক্ষণ বিক্ষোভ চলার পর খবর পেয়ে সেখানে পৌঁছয় পুলিশ।

স্থানীয় বিধায়ক শিউলি সাহা জানিয়েছেন, বিএলআরও দফতর থেকে বহু বেআইনি কাজ হচ্ছে। সেসব আমি বিএলআরওকে জানিয়েছিলাম। কিন্তু, কাজের কাজ কিছু হয়নি।

ঘটনার খবর পৌঁছেছে জেলা প্রশাসনের কর্তাদের কাছে। ঘটনার তদন্ত করে পদক্ষেপের আশ্বাস দিয়েছেন তাঁরা। ওদিকে অভিযুক্ত প্রশান্তবাবুর দাবি, চাপ থাকায় বেশি রাত পর্যন্ত কাজ করতে হয়। তেমনই করছিলাম। মদ্যপানের অভিযোগ সত্যি নয়।



বন্ধ করুন