বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করা হল নৌকা পরিষেবা, ভোগান্তি নিত্যযাত্রীদের
নৌকা চালানো অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ। (ছবি সৌজন্য এএনআই)

অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করা হল নৌকা পরিষেবা, ভোগান্তি নিত্যযাত্রীদের

  • এই অভিযোগের জেরে আন্তঃরাজ্য নৌকা চলাচল বন্ধ করে আন্দোলনে নামলেন মাঝিরা।

এবার বেঁকে বসলেন মাঝিরা। আর তার জেরে নৌকা চালানো অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করলেন তাঁরা। এই ঘটনাটি ঘটেছে মালদহের মানিকচকে। যার জেরে ফলে চরম সমস্যায় পড়েছেন নিত্যযাত্রীরা। এই নদীপথ দিয়ে যাতায়াত করেন ঝাড়খণ্ডের রাজমহল এবং মালদহের নিত্যযাত্রীরা। কিন্তু এখানে অবৈধভাবে একাধিক নৌকা চলাচল করছে বলে অভিযোগ। এই অভিযোগের জেরে আন্তঃরাজ্য নৌকা চলাচল বন্ধ করে আন্দোলনে নামলেন মাঝিরা।

ঠিক কী ঘটেছে এখানে?‌ মাঝিদের সূত্রে খবর, আইনি জটিলতায় এখন বন্ধ আছে লঞ্চ পারাপার। এখন পারাপার করতে ভরসা হল নৌকা। এখানে মোট ১৬টি নৌকা রোজ চলাচল করে। কিন্তু দেখা গিয়েছে, বেশ কয়েকটি নৌকা কোনও অনুমতি ছাড়াই অবৈধভাবে চলাচল শুরু করেছে। তাই এই সমস্যার সমাধান না হলে নৌকা চলাচল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

মাঝিদের অভিযোগ কী?‌ নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এক মাঝি বলেন, ‘‌মানিকচক ঘাট থেকে রাজমহল ঘাট পর্যন্ত আমরা শুরু থেকেই নৌকা চালিয়ে আসছি। সেখানে বাইরের কয়েকটি নৌকা নদীতে চলছিল। এই নিয়ে একাধিকবার প্রশাসনিক বৈঠকও হয়েছে। সেখানে সিদ্ধান্ত হয়, যে কটা নৌকা রয়েছে তারাই চলবে অতিরিক্ত কোনও নৌকা আর চলবে না। কিন্তু তারপরও অনেকে কথা শুনছে না। তাই আমরা ঠিক করেছি আর নৌকা চালাব না।’‌

এই সিদ্ধান্তের জেরে নদীতে নৌকা থাকলেও তা চলাচল করছে না। তাতে ভোগান্তি চরমে উঠেছে নিত্যযাত্রী থেকে সাধারণ মানুষের। রোজগারে টান পড়েছে মাঝিদেরও। ঝাড়খণ্ডের নৌকাগুলি অবৈধভাবে মানিকচক ঘাটে চালানো হচ্ছে। গোটা বিষয়টি প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। এখন নৌকা পারাপার পুরোপুরি বন্ধ রেখেছেন মাঝিরা। কবে সমাধান হবে?‌ কেউ বলতে পারছেন না।

বন্ধ করুন