বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > নিউ ব্যারাকপুরের গেঞ্জি কারখানায় ড্রোন ঢুকিয়ে খোঁজ মিলল ৪ শ্রমিকের দগ্ধ দেহ
রোবট এনে আগুন নেভানোর কাজ চলছিল। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
রোবট এনে আগুন নেভানোর কাজ চলছিল। (ছবি সৌজন্য এএনআই)

নিউ ব্যারাকপুরের গেঞ্জি কারখানায় ড্রোন ঢুকিয়ে খোঁজ মিলল ৪ শ্রমিকের দগ্ধ দেহ

  • নিউ ব্যারাকপুরের অগ্নিদগ্ধ কারখানা থেকে শেষ পর্যন্ত পাওয়া গেল নিখোঁজ চার শ্রমিকের দগ্ধ দেহ।

নিউ ব্যারাকপুরের অগ্নিদগ্ধ কারখানা থেকে শেষ পর্যন্ত পাওয়া গেল নিখোঁজ চার শ্রমিকের দগ্ধ দেহ। কারখানার ভিতর ড্রোন প্রবেশ করিয়ে নিখোঁজ ওই চার শ্রমিকের সন্ধান মেলে। কারখানার দোতলা সিঁড়ি থেকে মিলল নিখোঁজ চার শ্রমিকের দগ্ধ দেহ। দেহ শনাক্ত করতে পরিবারের সদস্যদের আনা হয়েছে। এদিকে কারখানার মালিকের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই মামলা দায়ের হয়েছে।

মৃত চার শ্রমিকের নাম, অমিত সেন, সুব্রত ঘোষ, তণ্ময় ঘোষ, স্বরূপ ঘোষ। আগুনের ভয়াবহতার কারণে গত তিনদিনে কারখানার ভিতরে প্রবেশ করতে পারেননি দমকল কর্মীরা। কারখানায় ও গুদামে দাহ্য পদার্থ মজুত থাকায় আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। এদিন আগুন কিছুটা নিয়ন্ত্রণে এলে কারখানার ভেতরে ড্রোন পাঠানো হলে ওই চার শ্রমিকের ঝলসানো দেহ উদ্ধার হয়। ধারণা করা হচ্ছে প্রাণ হারানোর আগে শেষবারের মতো বাঁচার চেষ্টা করেছিলেন এই চার শ্রমিক।

২৬ মে রাত তিনটে নাগাদ আগুন লাগে নিউ ব্যারাকপুরের বিলকান্দার গেঞ্জি কারখানায়। এরপর আগুন ছড়ায় ওষুধের গুদামে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে দমকালের ১৫টি ইঞ্জিন। আনা হয় আধুনিক রোবট। তবে অত্যাধিক তাপের আশঙ্কায় কারখানায় ঢোকানো যায়নি রোবট। দমকলের ধারণা, গেঞ্জি কারখানা এবং ওষুধের গুদামে প্রচুর পরিমাণ দাহ্য বস্তু ছিল। সেই কারণে আগুনের ভয়াবহতা ক্রমশ বেড়েছে।

বন্ধ করুন