বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বাড়ি থেকে দা নিয়ে বেরিয়েছিলেন জামাইবাবু, কয়েক ঘণ্টা পর মিলল শ্যালিকার দেহ
নিহত সম্পা সরকার। 
নিহত সম্পা সরকার। 

বাড়ি থেকে দা নিয়ে বেরিয়েছিলেন জামাইবাবু, কয়েক ঘণ্টা পর মিলল শ্যালিকার দেহ

  • মৃতের বাবা জানিয়েছেন, ‘ঘটনার সময় আমি পুজো করছিলাম। বেলা ২টো নাগাদ পুজো সেরে উঠে দেখি বড় মেয়ের ঘরের দরজা ভেজানো। দরজা খুলতেই দেখি রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে সে।

পারিবারিক বিবাদের জেরে বিধবা শ্যালিকাকে কুপিয়ে খুনের অভিযোগ এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। সোমবার দুপুরে এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়ায় উত্তর ২৪ পরগনার হৃদয়পুরের আপনপল্লি এলাকায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বারাসত থানার পুলিশ। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান সম্পা সরকার (৪৫) নামে ওই প্রৌঢ়াকে খুন করেছেন তাঁর বোন টুলু সাহার স্বামী জয়দেব সাহা। জয়দেবকে খুঁজছে পুলিশ।

টুলু সাহা জানিয়েছেন, তাঁর স্বামী পেশায় ফুচকা বিক্রেতা। সাংসারিক অশান্তি তাঁদের বাড়িতে নিত্যদিনের ঘটনা। সোমবারও সকাল থেকে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কলহ চলছি। এরই মধ্যে হঠাৎ বাড়ি থেকে কাটারি হাতে বেরিয়ে পড়েন জয়দেববাবু। তবে নিজে চোখে তা দেখেননি তিনি। ছেলে তাঁকে সেকথা জানাতে স্বামীকে খুঁজতে বেরোন। কিন্তু স্বামীর খোঁজ পাননি তিনি। ঘণ্টাতিনেক পর খবর আসে হৃদয়পুরের আপনপল্লিতে খুন হয়েছেন তাঁর দিদি সম্পা।

মৃতের বাবা জানিয়েছেন, ‘ঘটনার সময় আমি পুজো করছিলাম। বেলা ২টো নাগাদ পুজো সেরে উঠে দেখি বড় মেয়ের ঘরের দরজা ভেজানো। দরজা খুলতেই দেখি রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে সে। কাউকে বাড়িতে ঢুকতে বা বেরোতে দেখিনি। কোনও আওয়াজও পাইনি।’

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে বারাসত থানার পুলিশ। ঘটনায় জয়দেব যুক্ত বলে অনেকাংশে নিশ্চিত তদন্তকারীরা। আপাতত তাঁর খোঁজ চালাচ্ছেন গোয়েন্দারা।

 

বন্ধ করুন