বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > হাসপাতালের আবাসন থেকে উদ্ধার মহিলা চিকিৎসকের পচন ধরা দেহ
প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

হাসপাতালের আবাসন থেকে উদ্ধার মহিলা চিকিৎসকের পচন ধরা দেহ

  • জানা গিয়েছে সুচিত্রাদেবীর বাড়ি পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায়। এতদিন তিনি নিখোঁজ থাকলেও হাসপাতাল বা পরিবারের তরফে কেন তাঁর খোঁজ করা হল না তা নিয়েও প্রশ্ন উঠছে।

রাজ্যে ফের অস্বাভাবিক মৃত্যু হল এক সরকারি মহিলা চিকিৎসকের। পুরুলিয়ার বড়াবাজার শহরের ব্লক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের আবাসন থেকে উদ্ধার হল মহিলা চিকিৎসকের দেহ। শুক্রবার এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়ায়। দরজা ভেঙে আবাসনের ভিতর থেকে দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। দেহটি ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, সুচিত্রা সিং সর্দার (৪০) নামে ওই মহিলা চিকিৎসকের গত কয়েকদিন ধরে খোঁজ মিলছিল না। শুক্রবার তাঁর আবাসন থেকে পচা গন্ধ বেরোতে থাকে। ওই আবাসনে একাই থাকতেন সুচিত্রাদেবী। স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ দরজা ভেঙে আবাসনে ঢুকে দেহ উদ্ধার করে। দেহটিতে সম্পূর্ণভাবে পচন ধরেছিল বলে জানিয়েছেন তদন্তকারীরা। যা থেকে তাঁদের অনুমান চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে বেশ কয়েদিন আগে। ঘর থেকে মেলেনি কোনও সুইসাইড নোট। তাতেই ধন্দে পুলিশ। তাহলে কি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল তরুণ এই চিকিৎসকের?

জানা গিয়েছে সুচিত্রাদেবীর বাড়ি পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায়। এতদিন তিনি নিখোঁজ থাকলেও হাসপাতাল বা পরিবারের তরফে কেন তাঁর খোঁজ করা হল না তা নিয়েও প্রশ্ন উঠছে। চিকিৎসকের বাড়িতে খবর দিয়েছে পুলিশ। ময়নাতদন্তের জন্য দেহ পাঠানো হয়েছে দেবেন মাহাতো সদর হাসপাতালে।

বলে রাখি, গত মাসেই বদলি সংক্রান্ত জটিলতার জেরে আত্মঘাতী হয়েছিলেন চিকিৎসক অবন্তিকা ভট্টাচার্য। বেহালার বাড়িতে গায়ে অ্যালকোহল ঢেলে আত্মঘাতী হন তিনি। তার আগে ফেসবুক পোস্টে লেখেন তাঁর যন্ত্রণার কথা। তার পর ফের রাজ্যে অস্বাভাবিক মৃত্যু হল এক সরকারি মহিলা চিকিৎসকের।

বন্ধ করুন