বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > সেপটিক ট্যাঙ্কে মিলল কিশোরীর বস্তাবন্দি দেহ, পরিবারের দাবি গণধর্ষণের পর খুন
প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

সেপটিক ট্যাঙ্কে মিলল কিশোরীর বস্তাবন্দি দেহ, পরিবারের দাবি গণধর্ষণের পর খুন

  • কিশোরীর পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, গত ১০ অগাস্ট থেকে সন্ন্যাসীকাটা গ্রাম পঞ্চায়েতে বালুবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা ওই কিশোরীর খোঁজ মিলছিল না।

কিশোরীকে ধর্ষণ করে খুনের অভিযোগ জলপাইগুড়ির রাজগঞ্জে। বৃহস্পতিবার রাজগঞ্জের সন্ন্যাসীকাটার বাসিন্দা ওই কিশোরীর দেহ সেপটিক ট্যাঙ্ক থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। কিশোরীর কল লিস্ট খতিয়ে দেখে ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাদের জেরা করে রহস্য উন্মোচনের চেষ্টা চালাচ্ছেন তদন্তকারীরা। 

কিশোরীর পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, গত ১০ অগাস্ট থেকে সন্ন্যাসীকাটা গ্রাম পঞ্চায়েতে বালুবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা ওই কিশোরীর খোঁজ মিলছিল না। পরদিন রাজগঞ্জ থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করেন পরিজনরা। তার পর পুলিশও কিশোরীর খোঁজ দিতে পারেনি। বৃহস্পতিবার স্থানীয় একটি সেপটিক ট্যাঙ্ক থেকে কিশোরীর দেহ উদ্ধার হয়। এর পরই তাঁকে ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন মৃতের বাড়ির লোকেরা। 

ঘটনার তদন্তে নেমে কিশোরীর ফোনের কল লিস্ট ঘেঁটে প্রথমে এত যুবককে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাঁকে জেরা করে আরও ২ জনকে গ্রেফতার করা হয়। ধৃতদের জেরা করে কিশোরীকে কেন খুন করা হয়েছে তা জানার চেষ্টা চলছে। খুনের আগে তাঁকে ধর্ষণ করা হয়েছিল কি না তাও জানার চেষ্টা চলছে অভিযুক্তদের থেকে। দেহাবশেষের ময়নাতদন্তের রিপোর্টের অপেক্ষায় রয়েছেন তদন্তকারীরা। ঘটনায় অভিযুক্তদের শাস্তির দাবিতে শুক্রবার বিক্ষোভ দেখায় তৃণমূল। 

 

বন্ধ করুন