বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > কফিনে করে দার্জিলিং পাহাড়ে ফিরলেন রাওয়াতের নিরাপত্তারক্ষী সৎপাল
তাকদায় শায়িত সেনাকর্মী সৎপাল রাইয়ের দেহ।
তাকদায় শায়িত সেনাকর্মী সৎপাল রাইয়ের দেহ।

কফিনে করে দার্জিলিং পাহাড়ে ফিরলেন রাওয়াতের নিরাপত্তারক্ষী সৎপাল

  • দেহ বাড়িতে পৌঁছতেই কান্নায় ভেঙে পড়ে গোটা পরিবার। সেনার তরফে জানানো হয়েছে, রবিবার দেহ দার্জিলিংয়ে সংরক্ষিত থাকবে।

হেলিকপ্টার দুর্ঘটনার ৪ দিন পর দার্জিলিংয়ের তাকদায় এসে পৌঁছল সেনাকর্মী সৎপাল রাইয়ের দেহ। রবিবার বাগডোগরা বিমানবন্দরে এসে পৌঁছয় দেহ। সেখান থেকে নিয়ে যাওয়া হয় তাকদায় তাঁর বাড়িতে। নিহত সেনাকর্মীকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে হাজির ছিলেন মন্ত্রী গৌতম দেব, সাংসদ রাজু বিস্তা।

গত বুধবার তামিলনাড়ুর কুন্নুরে হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয় সৎপাল রাইয়ের। তিনি CDS বিপিন রাওয়াতের দেহরক্ষী ছিলেন। বিমান দুর্ঘটনার পর দিন দিল্লিতে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁর দেহ। সেখান থেকে রবিবার সেনাবাহিনীর বিশেষ বিমানে দেহ পৌঁছয় বাগডোগরায়। বিমানবন্দর থেকে ব্যাঙডুবির সেনা ক্যাম্পে নিয়ে যাওয়া হয় দেহ। সেখান থেকে দেহ নিয়ে যাওয়া হয় তাকদায়। নিহত সেনাকর্মীকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে রাস্তার ২ পাশে হাজির ছিলেন অসংখ্য মানুষ।

দেহ বাড়িতে পৌঁছতেই কান্নায় ভেঙে পড়ে গোটা পরিবার। সেনার তরফে জানানো হয়েছে, রবিবার দেহ দার্জিলিংয়ে সংরক্ষিত থাকবে। সোমবার সামরিক প্রক্রিয়া মেনে সৎকার হবে সৎপাল রাইয়ের দেহ।

২০০১ সালে সেনায় যোগ দিয়েছিলেন সৎপাল। ২০২৪ সালে অবসর গ্রহণের কথা ছিল তাঁর। দক্ষতার জন্য তাঁকে দেশের সেনা সর্বাধিনায়কের নিরাপত্তারক্ষী নিয়োগ করা হয়েছিল। বুধবারই পরিবারের সঙ্গে শেষবার কথা হয়েছিল প্রয়াত সেনাকর্মীর। তাঁর প্রয়াণে শোকের ছায়া গোটা পাহাড়জুড়ে।

 

বন্ধ করুন