বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বন্ধ ঘর থেকে উদ্ধার হল বধূ ও ২ শিশুপুত্রের দেহ
প্রতীকি ছবি

বন্ধ ঘর থেকে উদ্ধার হল বধূ ও ২ শিশুপুত্রের দেহ

  • প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, রিজিয়ার স্বামী আমিরুল কর্মসূত্রে হাওড়ায় থাকেন। দম্পতির ৩ সন্তান। তার মধ্যে বড় মেয়ে ঠাকুমার সঙ্গে পিসির বাড়িতে থাকে।

স্বামী প্রবাসী। ২ ছেলেকে নিয়ে আত্মঘাতী হলেন মা। ঘটনা দক্ষিণ ২৪ পরগনার কুলতলির গরানকাটি গ্রামের। নিহত বধূর নাম রিজিয়া সর্দার। কী কারণে তিনি এই সিদ্ধান্ত নিলেন তা নিয়ে সন্দিহান পরিবারের সদস্যরাও।

প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, রিজিয়ার স্বামী আমিরুল কর্মসূত্রে হাওড়ায় থাকেন। দম্পতির ৩ সন্তান। তার মধ্যে বড় মেয়ে ঠাকুমার সঙ্গে পিসির বাড়িতে থাকে। ২ ছেলেকে নিয়ে বাড়িতে থাকতেন রিজিয়া। শনিবার সকালে বেলা হয়ে গেলেও দরজা না খোলায় সন্দেহ হয় প্রতিবেশীদের। ডাকাডাকি করেও কোনও সাড়া পাননি তাঁরা। এর পর খবর যায় কুলতলি থানায়। পুলিশ পৌঁছে দরজা ভেঙে দেখে মেঝেতে পড়ে রয়েছে মা ও ২ শিশুপুত্রের দেহ। দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায় পুলিশ।

প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, সম্ভবত কীটনাশক খেয়ে আত্মঘাতী হয়েছেন রিজিয়া। তার আগে একই ভাবে খুন করেছেন ২ শিশুপুত্রকে। তবে বধূ কেন এভাবে আত্মঘাতী হলেন তা নিয়ে মুখ খোলেননি কেউ। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছেন কুলতলি থানার আধিকারিকরা। কী কারণে বধূ আত্মঘাতী হলেন তা জানতে পরিবারের সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে পুলিশ।

 

বন্ধ করুন