বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বেলুড়ে উদ্ধার বৃদ্ধ ভাই - বোনের পচা গলা দেহ, পাশের ঘরে বসে ছিলেন আরেক বোন
প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

বেলুড়ে উদ্ধার বৃদ্ধ ভাই - বোনের পচা গলা দেহ, পাশের ঘরে বসে ছিলেন আরেক বোন

  • পুলিশ কর্মীরা জানিয়েছেন, পাশের ঘরেই বসে ছিলেন মনোরঞ্জনবাবুর বোন অনিতা। তবে দাদা ও দিদির কী ভাবে মৃত্যু হল তা নিয়ে কিছু বলতে পারেননি তিনি।

হাওড়ার বেলুড়ে দাদা ও দিদির পচাগলা দেহ আগলে বসে রইলেন বোন। পচা গন্ধ পয়েছে বেলুড় থানায় খবর দেন স্থানীয়রা। এর পর পুলিশ এসে তালা ভেঙে উদ্ধার করে দেহদুটি। মৃতদের নাম মনোরঞ্জন সেন (৬৫) ও প্রতিমা সেন (৫৫) বলে জানা গিয়েছে। মৃতরা সম্পর্কে ভাই বোন। পাশের ঘরেই বসে ছিলেন আরেক বোন অনিতা সেন। 

প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, দীর্ঘদিন ধরে অবসাদে ভুগছিলেন পরিবারের সদস্যরা। এলাকায় কারও সঙ্গে যোগাযোগ রাখতেন না তাঁরা। বুধবার সকালে বাড়ি থেকে পচা গন্ধ পেয়ে পুলিশে খবর দেন এলাকাবাসী। পুলিশ এসে তালা ভেঙে বাড়িতে ঢোকে। দেখা যায় বাড়ির বারান্দায় পড়ে রয়েছে মনোরঞ্জনবাবুর দেহ। পাশেই ঘরে পড়ে রয়েছে তাঁর বোন অনিতা। ২টি দেহেই পচন ধরেছে।

পুলিশ কর্মীরা জানিয়েছেন, পাশের ঘরেই বসে ছিলেন মনোরঞ্জনবাবুর বোন অনিতা। তবে দাদা ও দিদির কী ভাবে মৃত্যু হল তা নিয়ে কিছু বলতে পারেননি তিনি। মহিলা মানসিক ভাবে অসুস্থ বুঝে তাঁকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠিয়েছে পুলিশ। 

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, মনোরঞ্জনবাবু রেলে চাকরি করতেন। অবসরের পর ২ বোনের সঙ্গে লালবাবু সায়র রোডের ওই বাড়িতে থাকতেন তিনি। কিন্তু পাড়ায় কারও সঙ্গে কথা বলতেন না তাঁরা। সম্প্রতি মনোরঞ্জনবাবু পড়ে গিয়ে পায়ে চোট পান। তার পর স্থানীয় এক ব্যক্তি তাঁর চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। কিন্তু দিন সাতেক তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়নি বলে জানিয়েছেন ওই ব্যক্তি।

পুলিশের দাবি দেহের অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে, ৩ -৫ দিন আগে মৃত্যু হয়েছে তাঁদের। সম্ভবত অনাহারে মৃত্যু হয়েছে ভাই বোনের। দেহ ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ।

 

বন্ধ করুন