বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > গরুপাচারের তদন্তে অনুব্রত মণ্ডল ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ী রাজীব ভট্টাচার্যকে তলব সিবিআইয়ের
প্রতিকি ছবি

গরুপাচারের তদন্তে অনুব্রত মণ্ডল ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ী রাজীব ভট্টাচার্যকে তলব সিবিআইয়ের

  • সিবিআই সূত্রে দাবি, অনুব্রত মণ্ডলের সঙ্গে রাজীব ভট্টাচার্যের প্রত্যক্ষ যোগাযোগের প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে। ২০১৯ সালে অনুব্রত মণ্ডলের স্ত্রী যখন কলকাতার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তখন হাসপাতালের বিল বাবদ ৬৬ লক্ষ টাকা মিটিয়েছিলেন রাজীববাবু।

গরুপাচারকাণ্ডের তদন্তে অনুব্রত মণ্ডল ঘনিষ্ঠ ২ ব্যবসায়ী রাজীব ভট্টাচার্য ও সুজিত দেকে তলব করল সিবিআই। অনুব্রতর টাকা তারা কোথায় কোথায় বিনিয়োগ করেছেন জানতেই এই তলব বলে মনে করা হচ্ছে। গরুপাচারকাণ্ডে ইতিমধ্যে অনুব্রতকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বর্তমানে জেল হেফাজতে রয়েছেন অনুব্রত।

সিবিআই সূত্রের খবর, যে ৫ – ৬ ব্যবসায়ীর মাধ্যমে অনুব্রত গরুপাচারের কালো টাকা বিনিয়োগ করতেন তাদের মধ্যে রয়েছেন রাজীব ভট্টাচার্য ও সুজিত দে। বুধবার বেলা ২টোয় রাজীবকে বোলপুরের রতনপল্লিতে সিবিআইয়ের অস্থায়ী ক্যাম্পে হাজির হতে নির্দেশ দিয়েছিলেন গোয়েন্দারা।

পশ্চিমবঙ্গ পুলিশকে জেহাদিদের সঙ্গে তুলনা করলেন অমিত মালব্য

সিবিআই সূত্রে দাবি, অনুব্রত মণ্ডলের সঙ্গে রাজীব ভট্টাচার্যের প্রত্যক্ষ যোগাযোগের প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে। ২০১৯ সালে অনুব্রত মণ্ডলের স্ত্রী যখন কলকাতার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তখন হাসপাতালের বিল বাবদ ৬৬ লক্ষ টাকা মিটিয়েছিলেন রাজীববাবু। সেকথা আয়কর রিটার্নে উল্লেখও করেছেন তিনি।

সিবিআয়ের গোয়েন্দারা জানাচ্ছেন, বীরভূমের ৮ – ১০টি চালকলে রাজীব ভট্টাচার্যের বিনিয়োগ রয়েছে। কিন্তু এই বিপুল টাকা তিনি কোথা থেকে পেলেন তার কোনও ব্যাখ্যা খুজে পাচ্ছেন না গোয়েন্দারা। সেই টাকার উৎস জানতেই রাজীবকে জেরা করতে চান তাঁরা।

ওদিকে এদিন দুপুরে অনুব্রত মণ্ডল ঘনিষ্ঠ ব্যবাসয়ী সুজিত দের উকিলপল্লির বাড়িতে যান সিবিআইয়ের এক আধিকারিক। সুজিতবাবুকে হাজিরার নোটিশ ধরিয়েছেন তিনি। এর আগে গত ৩১ অগাস্ট সুজিতবাবুর বাড়িতে হানা দেন সিবিআই গোয়েন্দারা। উদ্ধার হয়েছিল বিপুল পরিমাণ নথি।

 

বন্ধ করুন