বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > সিবিআই আধিকারিকদের নিরাপত্তায় সিআরপিএফ জওয়ান, নির্দেশ দিল কেন্দ্র
সিআরপিএফ এখন সিবিআই আধিকারিকদের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবে। (ANI Photo) ( Imran Nissar)

সিবিআই আধিকারিকদের নিরাপত্তায় সিআরপিএফ জওয়ান, নির্দেশ দিল কেন্দ্র

  • কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের পক্ষ থেকে ৩৫ জন সিআরপিএফ নিয়োগ করা হয়েছে।

রামপুরহাট গণহত্যার তদন্ত করছে সিবিআই। তাঁরা ইতিমধ্যেই বগটুই গ্রামে গিয়ে তদন্তের কাজ শুরু করেছেন। এই পরিস্থিতিতে সিবিআই আধিকারিকদের নিরাপত্তায় কেন্দ্রীয় বাহিনী পাঠানো হল। রাজ্য পুলিশের উপর আস্থা না রেখে সিআরপিএফ এখন সিবিআই আধিকারিকদের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের পক্ষ থেকে ৩৫ জন সিআরপিএফ নিয়োগ করা হয়েছে।

এদিকে কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশেই রামপুরহাট গণহত্যার তদন্তের দায়িত্ব পেয়েছে সিবিআই। এখানে কেন্দ্রীয় সরকার সিবিআই আধিকারিকদের নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়ে বলে সূত্রের খবর। তাই তাঁদের নিরাপত্তায় আগ বাড়িয়ে সিআরপিএফ জওয়ান পাঠানো হচ্ছে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের পক্ষ থেকে এই পদক্ষেপ করা হয়েছে। শনিবার থেকেই এখানে বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। দুর্গাপুরে সিআরপিএফের ১৫৭ নম্বর ব্যাটেলিয়নের জওয়ানদের আনা হয়েছে।

অন্যদিকে রামপুরহাটের গ্রামেই এখন জওয়ানরা থাকছেন। আর বিভিন্ন হোটেলে সিবিআই কর্তারা থাকছেন। সেই হোটেলের বাইরেও মোতায়েন থাকছেন জওয়ানরা। এখন সর্বক্ষণ তাঁরা কর্তাদের নিরাপত্তায় নজরদারি রাখছেন। তদন্তকারীরা যতগুলি দলে বিভক্ত হয়ে তদন্তে যাবেন তাঁদের সঙ্গে থাকবেন এই সিআরপিএফ জওয়ানরা।

উল্লেখ্য, এখানেই তৃণমূল কংগ্রেসের উপপ্রধান ভাদু শেখকে বোমা মেরে খুন করা হয় বলে অভিযোগ। তারপর এখানে একাধিক বাড়িতে আগুন জ্বালিয়ে দেওয়া হয়। তার জেরে ৮ জন অগ্নিদগ্ধ হযে মারা যান। ঘটনাস্থলে গিয়ে দলের ব্লক সভাপতি আনারুল হোসেনকে গ্রেফতার করার নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আনারুল–সহ ১১ জন এখন সিবিআই হেফাজতে রয়েছে। অস্থায়ী ক্যাম্পে জেরা করা হচ্ছে তাদের।

বন্ধ করুন