বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বিদ্যুতের দাবিতে কসবা ও মহেশতলায় অবরোধ, পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে আহত একাধিক
শনিবার বিকেলে কসবার রাসবিহারী কানেক্টরে স্থানীয়দের পথ অবরোধ। ছবি: টুইটার।
শনিবার বিকেলে কসবার রাসবিহারী কানেক্টরে স্থানীয়দের পথ অবরোধ। ছবি: টুইটার।

বিদ্যুতের দাবিতে কসবা ও মহেশতলায় অবরোধ, পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে আহত একাধিক

  • পুলিশের লাঠির আঘাতে আহত হয়েছেন এক মহিলা, দাবি স্থানীয়দের। বেশ কয়েকজন বাসিন্দার চোট লেগেছে বলেও অভিযোগ।

বুধবার থেকে অমিল বিদ্যুৎ পরিষেবা। অনেক আবেদন জানিয়েও মেলেনি সাহায্য। প্রতিবাদে পথ অবরোধ করতে গিয়ে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধল দক্ষিণ ২৪ পরগনায় মহেশতলার বাসিন্দাদের। 

শনিবার বিকেলে বিদ্যুৎ ও পানীয় জলের দাবিতে দক্ষিণ কলকাতার কসবায় রাসবিহারী অ্যাভিনিউ কানেক্টরের একাধিক অংশে বিক্ষোভ দেখিয়ে পথ অবরোধ করেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এর ফলে রাস্তায় সাময়িক যানজট দেখা দেয়। অসুবিধায় পড়েন যাত্রীরা। পরে কসবা থানার পুলিশের হস্তক্ষেপে অবরোধ তোলা হয়।

এর আগে, শুক্রবার  রাতে মহেশতলার ঘটনার জেরে অটোরিকশা ও মোটরবাইকে আগুন ধরিয়ে দেয় জনতা। পুলিশের লাঠির আঘাতে আহত হয়েছেন এক মহিলা, দাবি স্থানীয়দের। বেশ কয়েকজন বাসিন্দার চোট লেগেছে বলেও অভিযোগ। 

আমফানের তাণ্ডবের পরে চার দিন কেটে গেলেও বেহাল বিদ্যুৎ পরিষেবা মহেশতলার বিস্তীর্ণ অঞ্চলে। সেই সঙ্গে পানীয় জলের সমস্যাও তীব্র রূপে দেখা দিয়েছে। এ হেন অবস্থায় ধৈর্যের বাঁধ ভাঙে অধিবাসীদের। অবিলম্বে বিদ্যুৎ পরিষেবা স্বাভাবিক করার দাবিতে রাস্তা অবরোধ করেন ২০ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দারা। 

অবরোধ তুলতে ঘটনাস্থলে পৌঁছলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ শুরু হয় বাসিন্দাদের। মুহূর্তের মধ্যে গোটা এলাকা রণক্ষেত্রের চেহারা নেয়। অভিযোগ, ঘটনায় রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা একাধিক অটোরিকশা ও মোটরবাইক ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দেন বিক্ষোভকারীরা। বিক্ষুব্ধ জনতাকে রুখতে পালটা লাঠি চালায় পুলিশ। তাতে এক মহিলা-সহ বেশ কয়েকজন জখম হয়েছেন বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। 

ঘটনার জেরে শনিবার সারাদিনই থমথমে ছিল মহেশতলা অঞ্চল। আইন-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে এলাকায় পুলিশ পিকেট বসানো হয়। 

বন্ধ করুন