বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Gangrape In Birbhum: মেলা থেকে ফেরার পথে একাদশ শ্রেণির ছাত্রীকে গণধর্ষণ বীরভূমে, চার যুবক পলাতক
চারজন যুবক মিলে গণধর্ষণ করল ছাত্রীকে

Gangrape In Birbhum: মেলা থেকে ফেরার পথে একাদশ শ্রেণির ছাত্রীকে গণধর্ষণ বীরভূমে, চার যুবক পলাতক

  • ছাত্রী বাড়ি ফিরে বিষয়টি পরিবারের সদস্যদের খুলে বলেন। তারপর যখন বিষয়টি নিয়ে পুলিশে যাওয়ার কথা হল তখন ঘরে চলে যায় ছাত্রীটি। আর আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে সেখান থেকে নামিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ছাত্রীকে নিয়ে আসা হয় মহকুমা হাসপাতালে।

মেলা দেখা বাড়ি ফিরছিল একাদশ শ্রেণির ছাত্রী। তবে একটু রাত হয়ে গিয়েছিল। আর স্কুটি চালিয়ে বাড়ি ফেরার পথে ওই একাদশ শ্রেণির ছাত্রীকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া হল নির্জন জায়গায়। তারপর চারজন যুবক মিলে গণধর্ষণ করল ওই ছাত্রীকে বলে অভিযোগ। এই অপমানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন ওই ছাত্রী। পরিবারের সদস্যরা নির্যাতিতাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন। ঘটনাস্থল বীরভূম। শিউরে উঠেছেন বাসিন্দারা।

ঠিক কী ঘটেছে বীরভূমে?‌ স্থানীয় সূত্রে খবর, বাড়ির থেকে কিছুটা দূরে মেলা বসেছিল। তাই শনিবার নিজের স্কুটিতে চড়ে মেলা দেখতে যান একাদশ শ্রেণির ছাত্রী। সন্ধ্যের পর সেখান ফিরছিলেন ছাত্রীটি। কিন্তু তাঁর পখ আটকে দাঁড়ায় চারজন যুবক। তারপর তাঁকে অজ্ঞান করে নিয়ে যাওয়া হয় নির্জন জায়গায়। সেখানেই ছাত্রীর উপর চলে পাশবিক নির্যাতন। পরিবার সূত্রে খবর, আজ রবিবার সকালে ঘুম ভাঙলে ছাত্রীটি দেখেন তিনি পড়ে রয়েছেন একটি ফাঁকা জায়গায়। পাশে তাঁর স্কুটি এবং মোবাইলও পড়ে রয়েছে। তবে তিনি স্কুটি নিয়ে বাড়ি ফেরেন।

তারপর সেখানে ঠিক কী ঘটল?‌ পরিবার সূত্রে খবর, ছাত্রী বাড়ি ফিরে বিষয়টি পরিবারের সদস্যদের খুলে বলেন। তারপর যখন বিষয়টি নিয়ে পুলিশে যাওয়ার কথা হল তখন ঘরে চলে যায় ছাত্রীটি। আর আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে সেখান থেকে নামিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ছাত্রীকে নিয়ে আসা হয় মহকুমা হাসপাতালে। সেখান থেকে বিষয়টি হাসপাতাল পুলিশকে জানায়। পুলিশ তদন্ত করতে শুরু করেছে।

কী বলছেন নির্যাতিতার মা?‌ এই ঘটনার পর নির্যাতিতার মা বলেন, ‘বিশ্বকর্মা পুজোয় এখানে মেলা বসে। সেটা দেখতে বেরিয়েছিল আমার মেয়ে। সন্ধ্যেবেলায় বাড়ি ফেরার কথা ছিল। তবে বাড়িতে বলে গিয়েছিল, এক বান্ধবীর সঙ্গে বেরোবে। কিন্তু সারারাত না ফেরায় ওকে ফোন করেছি। সকালে দেখি, আমার মেয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় বাড়িতে ফিরেছে। এমনকী ওর জামা ছেঁড়া। তখন মেয়ে নিজেই জানিয়েছে, ওকে চারটে ছেলে তুলে নিয়ে গিয়ে নির্যাতন করেছে। ও কাউকে চিনতে পারেনি।’ চারজন এখন পলাতক।

বন্ধ করুন