বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ‘‌সাইকেল তৈরির কারখানা হবে মেদিনীপুরেই’‌, বড় ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ছবি সৌজন্যে পিটিআই)

‘‌সাইকেল তৈরির কারখানা হবে মেদিনীপুরেই’‌, বড় ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী

  • ক্ষমতায় আসার পর স্কুলছুট আটকাতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সবুজ সাথী প্রকল্পে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রছাত্রীকে বিনামূল্যে সাইকেল দেওয়া হয়। ২০১৫ সালে রাজ্যে জঙ্গলমহলের ছাত্রীদের সাইকেল বিলি করা হয়। এই প্রকল্প রাষ্ট্রপুঞ্জের থেকে বিশেষ পুরস্কারও আদায় করে। 

দেশের মধ্যে সাইকেল সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করে বাংলা। পরিসংখ্যান বলছে, ৭৮.৯ শতাংশ মানুষ সাইকেল ব্যবহার করেন। ন্যাশনাল ফ্যামিলি অ্যান্ড হেলথ সার্ভে এই তথ্য ২০১৯ থেকে ২০২১ সালের মধ্যে কেন্দ্রের সমীক্ষা চালিয়ে এই তথ্য পেয়েছে। তাই এবার খড়্গপুরেই সাইকেল হাব তৈরি করার কথা ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ, মঙ্গলবার মেদিনীপুরের প্রশাসনিক বৈঠক থেকে এই কথা ঘোষণা করেন তিনি। তাতে রাজ্যে প্রচুর কর্মসংস্থানও হবে।

ঠিক কী হবে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী?‌ এদিনের প্রশাসনিক বৈঠক থেকে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‌সবুজ সাথী প্রকল্পের মাধ্যমে আমরা বছরে ১০ লাখ সাইকেল দিই পড়ুয়াদের। অথচ সাইকেলের সরঞ্জাম আমাদের বাইরে থেকে আনতে হয়। সাইকেলও আনতে হয় বাইরে থেকে। এখানে যদি সাইকেল ইন্ডাস্ট্রি তৈরি করতে না পারি তাহলে সাইকেল সারাবে কে? এবার সেই সাইকেল তৈরির কারখানা হবে মেদিনীপুরেই। বিদ্যাসাগর ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কে জায়গা দেওয়া হচ্ছে।’‌

উল্লেখ্য, ক্ষমতায় আসার পর স্কুলছুট আটকাতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সবুজ সাথী প্রকল্পে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রছাত্রীকে বিনামূল্যে সাইকেল দেওয়া হয়। ২০১৫ সালে রাজ্যে জঙ্গলমহলের ছাত্রীদের সাইকেল বিলি করা হয়। এই প্রকল্প রাষ্ট্রপুঞ্জের থেকে বিশেষ পুরস্কারও আদায় করে। একুশের নির্বাচনের আগেই হুইলস ফর চেঞ্জ পুরস্কার অর্জন করে এই প্রকল্প।

জানা গিয়েছে, আগামী বুধবার মেদিনীপুর কলেজ মাঠে কর্মীসভায় যোগ দেওয়ার কথা মুখ্যমন্ত্রীর। সার্কিট হাউস থেকে কলেজ মাঠে রওনা দেবেন। এরপর কলেজ মাঠে কর্মীসভায় যোগ দেওয়ার কথা তাঁর। তারপর মেদিনীপুর কলেজ মাঠের অস্থায়ী হেলিপ্যাড গ্রাউন্ড থেকে কপ্টারের ঝাড়গ্রামের উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন মুখ্যমন্ত্রী।

বন্ধ করুন