বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Mamata Banerjee: ‘‌বড় হয়ে কী হতে চাও?‌’‌, পড়ুয়াদের প্রশ্ন মুখ্যমন্ত্রীর, ঘোষণা এক কোটি টাকার

Mamata Banerjee: ‘‌বড় হয়ে কী হতে চাও?‌’‌, পড়ুয়াদের প্রশ্ন মুখ্যমন্ত্রীর, ঘোষণা এক কোটি টাকার

পড়ুয়াদের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেখা যায় স্কুলের নতুন দিদিমণির ভূমিকায়। বাচ্চাদের সঙ্গে মিশে যাওয়ার ক্ষমতা তাঁর সত্যিই প্রশংসনীয়। তবে এদিন ১২ হাজার ৫০০ বস্ত্র বিলি হয়েছে। আজ, বৃহস্পতিবারও এই ক্যাম্প হবে। হিঙ্গলগঞ্জের বিডিও শাশ্বত লাহিড়ীর গাফিলতির কারণে শীতবস্ত্র বিলি করা হয়নি বলে অভিযোগ উঠেছিল।

টাকি গভর্নমেন্ট কলেজের নতুন ক্যাম্পাস নির্মাণের জন্য এক কোটি টাকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর তখনই স্লোগান দিয়ে তাঁকে আহ্বান জানান ছাত্রছাত্রীরা। এই আনন্দঘন মুহূর্তে মুখ্যমন্ত্রী ছাত্রছাত্রীদের জিজ্ঞাসা করেন, ১০০ শতাংশ ছেলেমেয়ে স্কলারশিপ পাচ্ছো তো? ছাত্রছাত্রীরা বলে উঠল, পাচ্ছি দিদি। তারপর নতুন জামাকাপড় হাতে তুলে দিয়ে দেওয়ালে মণীষীদের টাঙানো ছবি দেখিয়ে জানতে চাইলেন মণীষীদের নাম। সবাই সঠিক উত্তর দিতেই বললেন, ‘‌ভেরি গুড’‌।

বুধবার টাকি কলেজ ছাড়াও হাসনাবাদ পঞ্চায়েতের খাঁ পুকুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। আর সেখানে বাচ্চাদের শীতের পোশাক ও টেডি বিয়ার উপহার দেন। তৃতীয় শ্রেণির সুনীতা মণ্ডলকে বড় হয়ে কি হতে চায় জিজ্ঞেস করেন। উত্তরে সুনীতা জানায়, সে চিকিৎসক হতে চায়। বর্ষা বৈদ্য মুখ্যমন্ত্রীকে বলেছে, সে শিক্ষক হতে চায়। স্কুল পরিদর্শনের পরে খাঁ পুকুর অঙ্গনওয়ারির মাঠে কয়েকশো মানুষকে শীতবস্ত্র বিলি করেন মুখ্যমন্ত্রী। তারপর অশোকনগরের বিধায়ক নারায়ণ গোস্বামী, এডিএম ও বিডিও এবং প্রশাসনিক কর্তাদের উপস্থিতিতে বলেন, ‘এখানে পুলিশ ও প্রশাসনের সকলে আছেন, মানুষ যাতে ভাল থাকে আপনারা দেখবেন।’

এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেখা যায় স্কুলের নতুন দিদিমণির ভূমিকায়। বাচ্চাদের সঙ্গে মিশে যাওয়ার ক্ষমতা তাঁর সত্যিই প্রশংসনীয়। তবে এদিন ১২ হাজার ৫০০ বস্ত্র বিলি হয়েছে। আজ, বৃহস্পতিবারও এই ক্যাম্প হবে। হিঙ্গলগঞ্জের বিডিও শাশ্বত লাহিড়ীর গাফিলতির কারণে শীতবস্ত্র বিলি করা হয়নি বলে অভিযোগ উঠেছিল। অভিযুক্ত বিডিওকে কম্পালসারি ওয়েটিংয়ে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। লঞ্চে ইছামতী ঘুরে দেখেন তিনি। নিজে লঞ্চও চালান। ইছামতী পার করে লঞ্চ গিয়ে থামে হাসনাবাদের এক ঘাটে। সেখানে খাঁপুকুর পঞ্চায়েত এলাকার একটি প্রাথমিক স্কুলে যান মুখ্যমন্ত্রী। ক্লাসরুম ভর্তি ছাত্রছাত্রী। ক্লাসে ক্লাসে ঢুকে বাচ্চাদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি।

পড়ুয়াদের ঠিক কী বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী?‌ টাকি কলেজে মুখ্যমন্ত্রী পড়ুয়াদের উদ্দেশে বলেন, ‘আমি চাই তোমরা বড় হয়ে কেউ ডাক্তার হও, ইঞ্জিনিয়ার হও। অনেক বড় হয়ে ওঠো। বড়দের শ্রদ্ধা ও শিক্ষক–শিক্ষিকাকে সম্মান জানাবে। এটাই আমাদের কাজ। নতুন ক্যাম্পাসের জন্য রাজ্যসভার সাংসদদের তহবিল থেকে এক কোটি টাকা দেওয়া হবে।’ তারপর এই ঘোষণার পর কলেজ থেকে বেরিয়ে টাকির গেস্ট হাউসে ফিরে যান মুখ্যমন্ত্রী।

বন্ধ করুন