বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ‘‌ক্ষমতা থাকলে আমার বুকে বন্দুক ঠেকাও’‌, কেএলও–কে সরাসরি চ্যালেঞ্জ মুখ্যমন্ত্রীর
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

‘‌ক্ষমতা থাকলে আমার বুকে বন্দুক ঠেকাও’‌, কেএলও–কে সরাসরি চ্যালেঞ্জ মুখ্যমন্ত্রীর

  • দু’‌দিনের উত্তরবঙ্গ সফরে এসেছেন মুখ্যমন্ত্রী। রয়েছেন আলিপুরদুয়ারে। এদিন জলপাইগুড়ি ও আলিপুরদুয়ারে কর্মীসভার পর বুধবার যোগ দেবেন গণবিবাহের অনুষ্ঠানে। সম্প্রতি উত্তরবঙ্গের একাংশ বাংলা ভাগের দাবি তুলেছে। অনন্ত মহারাজও এই বিভাজনের কথা বলেছেন। একাধিক বিজেপি বিধায়ক, সাংসদরাই সরব হয়েছেন ভাগ করার পক্ষ নিয়ে।

আলিপুরদুয়ার থেকে এবার কেএলও সংগঠনকে কড়া বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ, মঙ্গলবার এখানে জেলা সফরে এসে কর্মীসভা করেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখান থেকেই পাল্টা চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন। এখানে পা রাখলে রক্ত–গঙ্গা বইবে বলে হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছিল কামতাপুরি লিবারেশন অর্গানাইজেশনের পক্ষ থেকে। তারই পাল্টা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

ঠিক কী হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছিল?‌ দু’‌দিন আগে কেএলও প্রধান জীবন সিংয়ের একটি ভিডিয়ো প্রকাশ্যে আসে। যার সত্যতা যাচাই করেনি হিন্দুস্তান টাইমস বাংলা ডিজিটাল। তবে বার্তাটি মুখ্যমন্ত্রীর কান পর্যন্ত পৌঁছেছিল। সেখানে বলা হযেছিল, ‘‌মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কোচ–কামতাপুরে পা ফেলবেন না। কোচ–কামতাপুর গঠনে কোনও হস্তক্ষেপ বা বিরোধিতা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় করতে পারবেন না। বলপূর্বক কিছু করতে এলে পরিস্থিতি ভয়ঙ্কর হবে। লক্ষ লক্ষ মানুষ জীবন উৎসর্গ করে দেব। রক্তের বন্যা বইয়ে দেব।’‌

ঠিক কী বলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়?‌ এবার আলিপুরদুয়ারে কর্মীসভার মঞ্চ থেকে পাল্টা চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘‌আমাকে ভয় দেখাচ্ছে। উত্তরবঙ্গ না ভাগ করলে আমাকে মেরে দেবে। আমি বলছি, ক্ষমতা থাকলে আমার বুকে বন্দুক ঠেকাও। আমি অনেক বন্দুক দেখে এসেছি। এসব বন্দুক আমাকে দেখিও না। তোমাদের বন্দুক ভোঁতা করতে আমি জানি। বিজেপির প্রশ্রয় এই সব হচ্ছে। যখনই নির্বাচন আসে তখনই বিজেপি ভাগ করার কথা বলে। কিছু টাকা পয়সা দেয়, আর বড় বড় কথা বলে।’‌

উল্লেখ্য, দু’‌দিনের উত্তরবঙ্গ সফরে এসেছেন মুখ্যমন্ত্রী। রয়েছেন আলিপুরদুয়ারে। এদিন জলপাইগুড়ি ও আলিপুরদুয়ারে কর্মীসভার পর বুধবার যোগ দেবেন গণবিবাহের অনুষ্ঠানে। সম্প্রতি উত্তরবঙ্গের একাংশ বাংলা ভাগের দাবি তুলেছে। অনন্ত মহারাজও এই বিভাজনের কথা বলেছেন। একাধিক বিজেপি বিধায়ক, সাংসদরাই সরব হয়েছেন ভাগ করার পক্ষ নিয়ে। তাঁদের ইন্ধনেই কেএলও’‌র মতো বিচ্ছিন্নতাবাদী শক্তিগুলি পৃথক রাজ্যের দাবি তুলছে বলে অভিযোগ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বন্ধ করুন