বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বাজারি কোম্পানি দিয়ে জাতের নামে ভোট করার চেষ্টা হচ্ছে, বললেন তৃণমূল বিধায়ক
প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

বাজারি কোম্পানি দিয়ে জাতের নামে ভোট করার চেষ্টা হচ্ছে, বললেন তৃণমূল বিধায়ক

  • এর পরই প্রশান্ত কিশোরের সংস্থা IPAC-এর নাম না করে তিনি বলেন, ‘হিন্দু – মুসলমানের নামে ভোট শুধু নয়, হিন্দুদের মধ্যেও কোন জাত, কে ব্রাহ্মণ, কে কায়স্ত, কে রাজপুত, কে হরিজন, কে তপশিলি জাতি, কে তপশিলি উপজাতি ভাগ করে ভোট করতে আসছে।

ভোটে লড়বেন না বলে আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন। এবার সরাসরি দলের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করলেন বারাকপুরের তৃণমূল বিধায়ক শীলভদ্র দত্ত। একদা মুকুলের অনুগামী বলে পরিচিত শীলভদ্রর রবিবার এক সভায় বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গে পয়সা নিয়ে জাতপাতের নামে ভোট করানোর চেষ্টা করছে একটি বাজারি সংস্থা।’

এদিন তিনি বলেন, ‘অসুস্থতার জন্য আমি ছেড়ে যাচ্ছি না। বাইরে থেকে এসে একটা বাজারি কোম্পানি, যারা পয়সা নিয়ে ভোটের কাজ করে তারা আমাদের রাজনৈতিক জ্ঞান দিচ্ছে। দীর্ঘদিন রাজনীতি করার পরে সেই কোম্পানির একটা ছেলে এসে আমাকে বলছে, ভোট নিয়ে ভাবতে হবে না। ভোট আমরা করব। আমরা জেতানোর জন্য এসেছি’।

শীলভদ্রর প্রশ্ন, ‘এটা কি বিহার, ইউপি, মধ্যপ্রদেশ, দিল্লি.... না অন্য কোনও রাজ্য? বাংলা আর কেরলে মানুষ রাজনীতি করে আবেগ দিয়ে। সেই আবেগকে বিক্রি করে দিয়ে তোমরা জাতের ভোট করতে আসছ আমাদের রাজ্যে’? 

এর পরই প্রশান্ত কিশোরের সংস্থা IPAC-এর নাম না করে তিনি বলেন, ‘হিন্দু – মুসলমানের নামে ভোট শুধু নয়, হিন্দুদের মধ্যেও কোন জাত, কে ব্রাহ্মণ, কে কায়স্ত, কে রাজপুত,  কে হরিজন, কে তপশিলি জাতি, কে তপশিলি উপজাতি ভাগ করে ভোট করতে আসছে। বাংলার সংস্কৃতিতে এজিনিস কোনওদিন হয়েছে বলে আমার জানা নেই’।

পালটা প্রতিক্রিয়ায় তৃণমূলের তরফে জানানো হয়েছে, উনি কোনও কাজ করতে বাধা পেয়েছেন এমনটা নয়। তাও এমন কথা কেন বলছেন জানি না। আর ভোটে কে দাঁড়াবে তা দল ঠিক করবে। 

বিজেপির তরফে জানানো হয়েছে, তৃণমূলেও অনেক ভাল লোক রয়েছেন। তাঁদের দম বন্ধ হয়ে আসছে। নভেম্বর মাসে একটা ঝড় আসবে তাতে বহু নেতা মন্ত্রী বিজেপিতে যোগ দেবেন।

 

বন্ধ করুন