পরিযায়ী শ্রমিকদের তথ্য সংগ্রহে যাওয়ার পথে প্রহৃত কংগ্রেস বিধায়ক (ছবি সৌজন্য সংগৃহীত)
পরিযায়ী শ্রমিকদের তথ্য সংগ্রহে যাওয়ার পথে প্রহৃত কংগ্রেস বিধায়ক (ছবি সৌজন্য সংগৃহীত)

পরিযায়ী শ্রমিকদের তথ্য সংগ্রহে যাওয়ার পথে প্রহৃত কংগ্রেস বিধায়ক, অভিযুক্ত তৃণমূল

  • বিধায়কের দাবি, এলাকার ৫,০০০-র বেশি শ্রমিক ভিনরাজ্যে আটকে রয়েছেন। তাঁদের ফেরাতে রাজ্য সরকারের তরফে কোনও উদ্যোগ নেওয়া হয়নি।

শ্রেয়সী পাল :

ভিন রাজ্যে আটকে পড়া পরিযায়ী শ্রমিকদের তথ্য সংগ্রহে যাওয়ার পথে প্রহৃত হলেন ভরতপুরের কংগ্রেস বিধায়ক কমলেশ চট্টোপাধ্যায়। ঘটনায় তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে অভিযাগ উঠেছে। যদিও তৃণমূলের দাবি, স্থানীয়রাই কংগ্রেস বিধায়ককে তাড়া করেছেন।

ভরতপুরের বিধায়কের দাবি, এলাকার ৫,০০০-র বেশি শ্রমিক ভিনরাজ্যে আটকে রয়েছেন। তাঁদের ফেরাতে রাজ্য সরকারের তরফে কোনও উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। সেজন্য বৃহস্পতিবার সকালে সালারের তালিবপুরে শ্রমিকদের তথ্য সংগ্রহের জন্য যাচ্ছিলেন। কমলেশের অভিযোগ, সেই সময় তাঁদের মারধর করেন তালিবপুরের তৃণমূল প্রধান রবি শেখ ও তাঁর ৪০ জন অনুগামী। রবির স্ত্রী আবার তালিপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান।

কমলেশ বলেন, ‘আমার ব্যক্তিগত নিরাপত্তারক্ষী আছেন। তালিকা তৈরির সময় আমরা মা অসুস্থ হয়ে পড়েন। ওষুধ আনার জন্য নিরাপত্তারক্ষীকে পাঠাই। সেই সুযোগে আমার উপর ঝাঁপিয়ে পড়েন তৃণমূল কর্মীরা।’ ঘটনায় ভরতপুরের যুব কংগ্রেস সভাপতি সবুজ শেখ আহত হয়েছেন বলে দাবি স্থানীয় বিধায়কের। ঘটনায় তিনি থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। 

যদিও কংগ্রেস বিধায়কের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন তৃণমূলের জেলা সহ-সভাপতি অশোক দাস। তাঁর দাবি, ‘মানুষের সঙ্গে বিধায়কের কোনও যোগাযোগ নেই। স্থানীয়রা তাঁকে তাড়িয়ে দিয়েছেন। অধীর চৌধুরীর হয়ে তিনি নাটক করছেন।’

মুর্শিদাবাদের পুলিশ সুপার শবরী রাজকুমার জানিয়েছেন, ঘটনায় একটি এফআইআর দায়ের হয়েছে। তদন্ত চলছে।

বন্ধ করুন