বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > অবশেষে পূরণ হতে চলেছে দাবি, শুরু হল ডালখোলা রেলওয়ে ওভারব্রিজ নির্মাণের কাজ
শুরু হল ডালখোলা রেলওয়ে ওভারব্রিজ নির্মাণের কাজ: ছবি (‌সংগৃহীত)‌
শুরু হল ডালখোলা রেলওয়ে ওভারব্রিজ নির্মাণের কাজ: ছবি (‌সংগৃহীত)‌

অবশেষে পূরণ হতে চলেছে দাবি, শুরু হল ডালখোলা রেলওয়ে ওভারব্রিজ নির্মাণের কাজ

  • এই ওভারব্রিজ নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে।

রেলওয়ে ওভারব্রিজ নির্মাণের কাজ শুরু হল ডালখোলায়। কলকাতা থেকে শিলিগুড়ি যাওয়ার অন্যতম ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের কাজ শ্লথ গতিতে চলছে। যা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে জনস্বার্থ মামলা চলছে কলকাতা হাইকোর্টে। কলকাতাকে উত্তরবঙ্গের সঙ্গে জোড়ার এই রাস্তার কাজ দ্রুত শেষ করা নিয়ে সময় সময় নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

এপ্রসঙ্গে মামলাকারীর তরফের আইনজীবী কল্যাণ চক্রবর্তী বলেন, ‘‌ডালখোলা রেল লাইনের উপরে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের ওভারব্রিজের কাজ শুরু হওয়া, অবশ্যই উত্তরবঙ্গে জাতীয় সড়ক নির্মাণের ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ।’‌

তিনি আরও বলেন, ‘‌হাইকোর্টের নজরদারিতে ন্যাশনাল হাইওয়ে অথরিটির ডিরেক্টর, ডিআরএম কাটিহারের নেতৃত্বে এই ওভারব্রিজ নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। প্রত্যাকদিন ৬ ঘণ্টা করে কাজ হবে। কারণ, এই রেললাইন দিয়ে বহু গুরুত্বপূর্ণ ট্রেন যাতাযাত করে। এই ব্রিজটি তৈরি হওয়ার ফলে ওই অঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থা আরও উন্নত হবে।’‌

প্রসঙ্গত, দীর্ঘ দু’‌দশক ধরে ডালখোলা এলাকার মানুষের দাবি ছিল, কর্তৃপক্ষ যাতে দ্রুত ওই ওভারব্রিজের কাজ শেষ করে। করোনা সংক্রমণ-‌সহ বিভিন্ন জটিলতার কারণে এতদিন ওই ব্রিজ নির্মাণের কাজ থমকে ছিল। সেক্ষত্রে এই ব্রিজ নির্মাণের কাজ শুরু হওয়ায়, উপকৃত হলেন ডালখোলার বিস্তীর্ণ অঞ্চলের বাসিন্দারা।

স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, এই ব্রিজ তৈরি হলে যোগাযোগ ব্যবস্থা যেরকম মসৃণ হবে, তেমনই এলাকাবাসীদের আর্থ সামাজিক উন্নয়নের পাশাপাশি কর্মসংস্থানও বাড়বে। ইতিমধ্যে রাস্তা সম্প্রসারণের কাজের গতি বাড়াতে ২৫ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে কেন্দ্র।

উল্লেখ্য, জাতীয় সড়ক সম্প্রসারণের জন্য কেন্দ্র জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের তহবিলে অর্থ বরাদ্দ করেছিল। শুধু তাই নয়, বকেয়া নির্মাণের কাজ দ্রুত শেষ করতেও সড়ক কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছিল কেন্দ্র। ২০২০ সালের মধ্যে কিছু রাস্তার কাজ শেষ করতে বলা হয়েছিল। তবে করোনার সংক্রমণের কারণে নির্মাণ কাজ ব্যাহত হয়। কলকাতা থেকে শিলিগুড়ির মধ্যে ৬৫০ কিলোমিটারের রাস্তা রয়েছে। যার মধ্যে কলকাতা থেকে কৃষ্ণনগরে প্রায় ৯৫ শতাংশ কাজ হয়েছে।

বন্ধ করুন