বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ‘‌জেলা সভাপতি প্রাপ্য সম্মান দিচ্ছেন না’‌, কোচবিহার তৃণমূল চেয়ারম্যানের অভিযোগ
পার্থপ্রতিম রায়-গিরীন্দ্রনাথ বর্মণ।
পার্থপ্রতিম রায়-গিরীন্দ্রনাথ বর্মণ।

‘‌জেলা সভাপতি প্রাপ্য সম্মান দিচ্ছেন না’‌, কোচবিহার তৃণমূল চেয়ারম্যানের অভিযোগ

  • এখানের জেলা সভাপতির নাম পার্থপ্রতিম রায়। তিনি জেলা চেয়ারম্যান গিরীন্দ্রনাথ বর্মণকে প্রাপ্য সম্মান দিচ্ছেন না বলে অভিযোগ। স্বয়ং গিরীন্দ্রনাথ এই অভিযোগ তুলে জেলা সভাপতির কর্মসূচি বয়কটের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। যা নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়েছে।

এবার কোচবিহার জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের অন্দরে আকচা আকচি শুরু হয়ে গেল। দলের জেলা চেয়ারম্যানের নিশানায় পড়লেন জেলা সভাপতি। এই ঘটনায় দলের অন্দরে অস্বস্তি চরমে উঠেছে। এখানের জেলা সভাপতির নাম পার্থপ্রতিম রায়। তিনি জেলা চেয়ারম্যান গিরীন্দ্রনাথ বর্মণকে প্রাপ্য সম্মান দিচ্ছেন না বলে অভিযোগ। স্বয়ং গিরীন্দ্রনাথ এই অভিযোগ তুলে জেলা সভাপতির কর্মসূচি বয়কটের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। যা নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়েছে।

ঠিক কী বলেছেন জেলা চেয়ারম্যান?‌ এই বিষয়ে কোচবিহারের তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা চেয়ারম্যান গিরীন্দ্রনাথ বর্মন বলেন, ‘‌যে সভায় চেয়ারম্যান হিসেবে আমার নাম থাকবে না, পার্থপ্রতিম রায়ের সেই সভা আমি বয়কট করব। আত্মসম্মান হারিয়ে ওর সঙ্গে রাজনীতি করা সম্ভব নয়।’‌ এই হুঁশিয়ারির পর বহু নীচুতলার কর্মীরা কি করবেন বুঝতে পারছেন না।

ঠিক কী ঘটেছে কোচবিহারে?‌ দলীয় সূত্রে খবর, রবিবার মাথাভাঙা দু’‌নম্বর ব্লকের বড় শৌলমারিতে তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মিসভা ছিল। সেখানে প্রচারের ফ্লেক্সে প্রধান বক্তা হিসেবে তৃণমূল জেলা সভাপতি পার্থপ্রতিম রায়ের নাম ছিল। অথচ জেলা তৃণমূল চেয়ারম্যান গিরীন্দ্রনাথ বর্মনের নাম ছিল না। তারপরই তিনি হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি লিখেছেন, জেলা তৃণমূল সভাপতি তাঁকে প্রাপ্য মর্যাদা দিচ্ছেন না।

এই বিষয়ে গিরীন্দ্রনাথ বর্মন বলেন, ‘‌মাথাভাঙা, নিশিগঞ্জ কর্মিসভায় কোথাও ফেস্টুনে আমার নাম নেই। জেলা চেয়ারম্যান হিসেবে অপমানিতবোধ করেছি। আমি সভাপতি থাকাকালীন সেই সময়ের চেয়ারম্যান উদয়ন গুহকে যোগ্য মর্যাদা দিয়েছি। কিন্তু পার্থপ্রতিম রায় তা দিচ্ছে না।’‌ প্রকাশ্যে এই মন্তব্য করার জন্য দলের অন্দরে অস্বস্তি বেড়েছে।

বন্ধ করুন