বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ভাগ্নির অপহরণকারীর হাতে গভীর রাতে খুন হাবরার দম্পতি, তদন্তে পুলিশ
পুলিশের দাবি, পুরনো রাগের বশেই দম্পতিকে খুনের পরিকল্পনা করে তন্ময় বর।
পুলিশের দাবি, পুরনো রাগের বশেই দম্পতিকে খুনের পরিকল্পনা করে তন্ময় বর।

ভাগ্নির অপহরণকারীর হাতে গভীর রাতে খুন হাবরার দম্পতি, তদন্তে পুলিশ

  • মঙ্গলবার রাত দুটো নাগাদ হাবরায় নিজেদের বাসভবনে আততায়ীর গুলিতে মৃত্যু হল উত্তর ২৪ পরগনার হাবরার বাসিন্দা দম্পতির।

KOLKATA :

ভাগ্নির নিগ্রহকারীর গুলিতে মৃত্যু হল উত্তর ২৪ পরগনার এক দম্পতির। মঙ্গলবার গভীর রাতের ঘটনায় এলাকাজুড়ে উত্তেজনা ছড়িয়েছে। আততায়ীকে চিহ্নিত করতে পেরেছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, মঙ্গলবার রাত দুটো নাগাদ হাবরায় নিজেদের বাসভবনে আচমকা অপরিচিত শব্দ শুনতে পেয়ে ঘর ছেড়ে বেরিয়ে আসেন হাবরার বাসিন্দা রামকৃষ্ণ মণ্ডল (৫৮) ও তাঁর স্ত্রী রানি মণ্ডল (৫১)। সঙ্গে সঙ্গে তাঁদের লক্ষ্য করে গুলি চালায় আততায়ী। মাথায় গুলি বিঁধে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় রানিদেবীর। বুকে গুলি লেগে গুরুতর জখম রামকৃষ্ণবাবুকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে তাঁর মৃত্যু হয়। 

পুলিশের দাবি, পুরনো রাগের বশেই দম্পতিকে খুনের পরিকল্পনা করে পূর্ব পরিচিত তন্ময় বর নামে এক যুবক। নিহত দম্পতির পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, রামকৃষ্ণবাবুর ভাগ্নি জেনিফার মণ্ডলকে প্রায়ই উত্যক্ত করত তন্ময়। ২০১৮ সালে তাঁকে অপহরণ করে ওই দুষ্কৃতী। অনেক চেষ্টা করে তার কব্জা থেকে ভাগ্নিকে ফিরিয়ে আনতে সক্ষম হন রামকৃষ্ণ।

পুলিশে অভিযোগ দায়ের করলে তন্ময়কে গ্রেফতার করা হয়। বিচারে তাকে কারাদণ্ড দেয় আদালত। সম্প্রতি জামিনে ছাড়া পেয়ে সে এলাকায় ফিরে রামকৃষ্ণবাবুকে সপরিবারে হত্যার হুমকি দেয় বলে জানিয়েছেন জেনিফার।

হত্যাকাণ্ডে প্রধান অভিযুক্ত তন্ময় বরের খোঁজে তল্লাশি অভিযানে নেমেছে বারাসত পুলিশ। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে খুনের মামলা দায়ের হয়েছে। 

বন্ধ করুন