বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ছেলের মৃতদেহের পাশে ৩ দিন শুয়ে অশীতিপর মা
কোচবিহারে বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে অ্যাম্বুল্যান্সে তুলছে পুলিশ। 
কোচবিহারে বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে অ্যাম্বুল্যান্সে তুলছে পুলিশ। 

ছেলের মৃতদেহের পাশে ৩ দিন শুয়ে অশীতিপর মা

  • কোতয়ালি থানার পুলিশ গিয়ে দরজা ভেঙে ভিতরে ঢুকে পঁচা গন্ধ পায়। এর পর বিছানায় বিশ্বজিৎবাবুর পচন ধরা দেহ দেখতে পান তাঁরা। পাশেই শুয়ে ৯৫ বছর বয়সী অসুস্থ মা।

তিন দিন ধরে মৃত ছেলের পাশে শুয়ে অসুস্থ মা। ঘটনা কোচবিহার শহরের। মৃত ব্যক্তির নাম বিশ্বজিৎ আচার্য (৪৮)। নানা শারীরিক জটিলতায় ভুগছিলেন তিনিও। শনিবার পুলিশ গিয়ে তাঁর দেহ উদ্ধার করে।

পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছেন, বিশ্বজিৎবাবু কোচবিহার পুরসভার অস্থায়ী পাম্প অপারেটর ছিলেন। গত ৩ দিন ধরে খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না তাঁর। বিষয়টি তাঁর বোনকে জানালে শনিবার বাপের বাড়িতে আসেন বোন ও ভগ্নিপতি। কিন্তু ডাকাডাকি করেও দরজা খোলেননি কেউ। এর পর খবর দেওয়া হয় পুলিশে।

কোতয়ালি থানার পুলিশ গিয়ে দরজা ভেঙে ভিতরে ঢুকে পঁচা গন্ধ পায়। এর পর বিছানায় বিশ্বজিৎবাবুর পচন ধরা দেহ দেখতে পান তাঁরা। পাশেই শুয়ে ৯৫ বছর বয়সী অসুস্থ মা।

দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায় পুলিশ। উদ্ধার করা হয় বিশ্বজিৎবাবুর মা-কেও। কীভাবে প্রৌঢ়ের মৃত্যু হল তা জানতে তদন্ত শুরু করেছে কোতয়ালি থানার পুলিশ। দেহ ময়নাতদন্তের জন্য MJN হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এলে পরবর্তী পদক্ষেপ করবেন বলে জানিয়েছেন আধিকারিকরা।

পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, বিশ্বজিৎবাবু বেশ কিছুদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন। সম্ভবত রোগভোগেই মৃত্যু হয়েছে তাঁর।

 

বন্ধ করুন