বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ডায়মন্ড হারবারে আত্মঘাতী তৃণমূলের পঞ্চায়েত উপপ্রধান, সুইসাইড নোটে নাম প্রধানের
প্রতীকি ছবি

ডায়মন্ড হারবারে আত্মঘাতী তৃণমূলের পঞ্চায়েত উপপ্রধান, সুইসাইড নোটে নাম প্রধানের

  • পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, দেবব্রতবাবু অবিবাহিত। বোলসিদ্ধি গ্রামে দিদির সঙ্গে থাকতেন তিনি। প্রথম দিন থেকে তৃণমূল কংগ্রেস করতেন তিনি। এলাকায় দলের অন্দরে ও বাইরে বেশ জনপ্রিয় ছিলেন তিনি। সোমবার সকাল পৌনে ৭টা নাগাদ বাড়ি থেকে বেরোন দেবব্রতবাবু।

তৃণমূল উপপ্রধানের রহস্যমৃত্যুকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়াল ডায়মন্ড হারবার ১ নম্বর ব্লকের বোলসিদ্ধি কালীনগর গ্রামপঞ্চায়েতে। সোমবার দুপুরে উপপ্রধান দেবব্রত ভট্টাচার্যকে অচেতন অবস্থায় রাস্তার পাশে পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয়রা। হাসপাতালে নিয়ে গেলে কিছুক্ষণ পর মৃত্যু হয় তাঁর। প্রাথমিকভাবে অনুমান, কীটনাশক খেয়ে আত্মঘাতী হয়েছেন তিনি। উপপ্রধানের বাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছে একটি সুইসাইড নোট। তাতে পঞ্চায়েত প্রধান মুন্নি বিবি ও এলাকার তৃণমূলের শিক্ষক নেতা মইদুল ইসলামকে তাঁর মৃত্যুর জন্য দায়ী করেছেন দেবব্রতবাবু।

পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, দেবব্রতবাবু অবিবাহিত। বোলসিদ্ধি গ্রামে দিদির সঙ্গে থাকতেন তিনি। প্রথম দিন থেকে তৃণমূল কংগ্রেস করতেন তিনি। এলাকায় দলের অন্দরে ও বাইরে বেশ জনপ্রিয় ছিলেন তিনি। সোমবার সকাল পৌনে ৭টা নাগাদ বাড়ি থেকে বেরোন দেবব্রতবাবু। তার পর থেকে তাঁর সঙ্গে পরিবারের লোকেদের আর যোগাযোগ হয়নি। দুপুরে এক ব্যক্তি হাসপাতাল থেকে ফোন করে তাঁর দিদিকে জানান, দেবব্রতবাবু অসুস্থ। হাসপাতালে ভর্তি। হাসপাতালে গিয়ে তাঁর পরিবারের সদস্যরা দেখেন ততক্ষণে মৃত্যু হয়েছে তাঁর।

‘নোংরামি হচ্ছে’, এ কী বললেন প্রসূন? তৃণমূল সাংসদের মুখে ‘জেলে যাওয়ার’ কথা!

এর পর বাড়িতে দেবব্রতবাবুর ঘরে পাওয়া যায় একটি সুইসাইড নোট। তাতে তাঁর এই পরিণতির জন্য ২ জায়গায় মুন্নি বিবি ও মইদুল ইসলামকে দায়ী করেছেন তিনি। সুইসাইড নোটে উপপ্রধানের স্ট্যাম্পও ব্যবহার করেছেন তিনি। তবে সুইসাইড নোটটি তাঁরই লেখা কি না তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। দেহ উদ্ধার করে ডায়মন্ড হারবার জেলা হাসপাতালে পাঠিয়েছে থানা।

ওদিকে সূত্রের খবর, কোনও বিষয় নিয়ে পঞ্চায়েত প্রধানের সঙ্গে বিবাদ চলছিল উপপ্রধানের। এই নিয়ে স্থানীয় সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে অভিযোগ জানিয়েছিলেন তিনি।

 

বন্ধ করুন