দিলীপ ঘোষ। ফাইল ছবি (PTI)
দিলীপ ঘোষ। ফাইল ছবি (PTI)

উনি এমন কী করেছেন যে 'বাংলার গর্ব' হবে? প্রশ্ন দিলীপের

এদিন দিলীপবাবু বলেন, ‘রাস্তায় পোস্টার – ব্যানার লাগিয়ে বাংলার গর্ব হওয়া যায় না। বাংলার গর্ব কে তা মানুষ ঠিক করবে।

তৃণমূলের বাংলার গর্ব মমতা কর্মসূচিকে চরম কটাক্ষে বিঁধলেন বিজেপির পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এদিন বারুইপুরে এক দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দিয়ে তিনি বলেন, বাংলা গর্ব কে তা রাস্তায় ব্যানার পোস্টার লাগিয়ে ঠিক হয় না কি?

শনিবার থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে তৃণমূলের ‘বাংলার গর্ব মমতা’ কর্মসূচি। নির্বাচনী রণনীতিকার প্রশান্ত কিশোর ও তাঁর সংস্থা আইপ্যাকের মস্তিষ্ক প্রসূত এই কর্মসূচি চলবে ৭৫ দিন ধরে। কর্মসূচির অধীনে রাজ্যজুড়ে নানা ছোট কর্মসূচি গ্রহণ করবেন তৃণমূলের নেতা-মন্ত্রী, সাংসদ – বিধায়করা। কর্মসূচির মাধ্যমে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পশ্চিমবঙ্গের গর্ব হিসাবে তুলে ধরা হবে।

গত সোমবার কলকাতার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে 'বাংলার গর্ব মমতা' কর্মসূচির উদ্বোধন করেন তৃণমূলনেত্রী নিজে। সেখানে হাজির ছিলেন দলের অন্যান্য নেতারাও। হাজির ছিলেন প্রশান্ত কিশোর নিজে। সেই ‘বাংলার গর্ব মমতা’-কেই শনিবার চরম কটাক্ষ করলেন দিলীপ ঘোষ।

এদিন দিলীপবাবু বলেন, ‘রাস্তায় পোস্টার – ব্যানার লাগিয়ে বাংলার গর্ব হওয়া যায় না। বাংলার গর্ব কে তা মানুষ ঠিক করবে। সেজন্য খরচ করে রাস্তায় পোস্টার সাঁটার কোনও দরকার নেই।’ দিলীপবাবুর প্রশ্ন, ‘বাংলার জন্য এমন কী করেছেন মমতা, যেজন্য কেউ গর্ববোধ করতে পারেন?’

বারুইপুরে শনিবার ছিল দলীয় কর্মীদের প্রশিক্ষণ শিবির। সেখানে জেলার বিভিন্ন মণ্ডল থেকে যোগ দেন বহু কর্মী। এদিন বিজেপিতে যোগ দেন কয়েক হাজার তৃণমূল-সিপিএম ও এসইউসিআউ সমর্থক। দিলীপবাবু বলেন, ‘বিজেপিতে যোগ দিলে তার সংবিধান জানতে হবে ও মেনে চলতে হবে। তাই এই শিবিরের আয়োজন।’


বন্ধ করুন